মঙ্গলবার ৭, ডিসেম্বর ২০২১
EN

আফগানিস্তানের দুর্বলতায় সেমির স্বপ্ন টিকে থাকলো ভারতের

আফগানিস্তানের বোলিং ব্যর্থতার পর ব্যাটিং দুর্বলতায় ভাগ্য খুলেছে ভারতের। বিরাক কোহলিরা বিশাল ব্যবধানে জয় পেয়ে সেমিফাইনালের স্বপ্ন বাঁচিয়ে রেখেছে।

আফগানিস্তানের বোলিং ব্যর্থতার পর ব্যাটিং দুর্বলতায় ভাগ্য খুলেছে ভারতের। বিরাক কোহলিরা বিশাল ব্যবধানে জয় পেয়ে সেমিফাইনালের স্বপ্ন বাঁচিয়ে রেখেছে। বুধবার টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে মাত্র ২ উইকেট হারিয়ে ২১০ রানের পাহাড় গড়ে ভারত। জবাবে ২১১ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে ৭ উইকেট হারিয়ে নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে আফগানরা ১৪৪ রান সংগ্রহ করতে সক্ষম হয়। ফলে বিশাল ব্যবধানে ম্যাচ জয় করে কোহলির দল।

টানা ২ ম্যাচ হেরে সেমিফাইনালের দৌড় থেকে অনেকটাই পিছিয়ে পরেছিল ভারত। বিপরীতে নিজেদের প্রথম ৩ ম্যাচে ২ জয়ে ভালো অবস্থানে অফগানিস্তান। দুই দল বুধবার একে অন্যের মুখোমুখি হয়েছে। যেখানে হারলে শেষ হয়ে যাবে ভারতের বিশ্বকাপ মিশন। সেমিতে যেতে আফগানদের জন্য এ ম্যাচে জয় পাওয়া জরুরি।

ভারতের জন্য ম্যাচটি বাঁচা-মরার। হারলেই বলতে হবে বিদায়। এ ম্যাচে টস ভাগ্যও কোহলিকে সাথে দেয়নি। টস জিতে ভার‍তে আগে ব্যাটিং করতে পাঠায় আফগান অধিনায়ক মোহাম্মদ নবী।

বুধবার আবুধাবিতে আফগানিস্তানের বিপক্ষে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে অবশ্য নিজেদের শক্তি প্রদর্শনই করল ভারত। আফগান বোলারদের পিটিয়ে নিজের ক্ষমতা জাহির করলেন রোহিম শর্মা ও লোকেশ রাহুলরা। এই দুই ওপেনারের ব্যাটিং তাণ্ডবে আফগানদের বিপক্ষে ২১০ রানের পাহাড় গড়ে ভারত।

৪৭ বলে ৮টি চার ও তিন ছক্কায় দলীয় সর্বোচ্চ ৭৪ রান করে আউট হন ওপেনার রোহিত শর্মা। ৪৮ বলে ৬টি চার ও দুটি ছক্কায় দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৬৯ রান করে ফেরেন আরেক ওপেনার লোকেশ রাহুল।

শেষ দিকে ব্যাটিংয়ে নেমে মাত্র ২১ বলে ৬৩ রানের জুটি গড়েন হার্দিক পান্ডিয়া ও ঋষভ পন্থ। ১৩ বলে ৪টি চার ও দুটি ছক্কায় ৩৫ রান করে অপরাজিত থাকেন পান্ডিয়া। আর ১৩ বলে তিন ছক্কায় ২৭ রান করে অপরাজিত পন্থ।

ভারত একাদশ : কেএল রাহুল, রোহিত শর্মা, বিরাট কোহলি, সুরিয়া কুমার যাদ, রিশভ পান্টস, হার্দিক পাণ্ডিয়া, রবীন্দ্র জাদেজা, রবিচন্দ্রন অশ্বিন, শার্দুল ঠাকুর, মোহাম্মদ শামি ও জাসপ্রিত বুমরাহ।

আফগানিস্তান একাদশ : হজরতউল্লাহ জাজাই, মোহাম্মদ শাহজাদ, রহমানউল্লাহ গুরবাজ, নাজিবউল্লাহ জাদরান, মোহাম্মদ নবী, করিম জানাত, গুলবাদিন নায়েব, শরাফউদ্দিন আশরাফ, রশিদ খান, নবীন-উল হক ও হামিদ হাসান।

এবিএস

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *