মঙ্গলবার ২৫, জানুয়ারী ২০২২
EN

আমাদের জন্য জয়টা জরুরি ছিল : মুমিনুল

নিউজিল্যান্ডকে টেস্ট ক্রিকেটে প্রথমবারের মত হারানোর স্বাদ পেয়েছে বাংলাদেশ। তাও আবার নিউজিল্যান্ডের ডেরায়। এমনকি বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের চ্যাম্পিয়ন দল।

নিউজিল্যান্ডকে টেস্ট ক্রিকেটে প্রথমবারের মত হারানোর স্বাদ পেয়েছে বাংলাদেশ। তাও আবার নিউজিল্যান্ডের ডেরায়। এমনকি বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের চ্যাম্পিয়ন দল। তাই এই জয়কে সেরা অর্জন বলতে কোন দ্বিধাবোধ করলেন না বাংলাদেশের টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হক।

ম্যাচ শেষে ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে অধিনায়ক মুমিনুল হক বলেন, ‘হ্যাঁ, অবশ্যই, আমার কাছে তা-ই মনে হয়, এটি সেরা অর্জন। আপনার সাথে আমি একমত। পরিস্থিতি যা, মানে যে অবস্থায় আমরা ছিলাম, সেই অবস্থা থেকে আমার মনে হয় এটা অনেক বড় (সাফল্য)। আর নিউজিল্যান্ডের মতো কঠিন কন্ডিশনে আমাদের জন্য এটা অনেক বড় অর্জন।’

তিনি আরো বলেন, ‘গত দুই বছরে আমরা খুব ভালো খেলতে পারিনি। সবাই জয়ের জন্য মুখিয়ে ছিল। আমাদের জন্য জয়টা জরুরি ছিল। আমরা এই টেস্ট জিততে মরিয়া ছিলাম। আমার কাছে মনে হয়, এটা আমাদের টেস্ট ক্রিকেটে উন্নতি করার একটা ইঙ্গিত হতে পারে।’
নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ফল নিয়ে চিন্তা করেননি। তবে ভালো খেলার পরিকল্পনা ছিলো তাদের। মুমিনুল বলেন, ‘আমরা ফল নিয়ে কিন্তু চিন্তা করিনি। আমি এখন বললে হয়তো অনেকে বলবে, লোকটা পাগল হয়ে গিয়েছে। আমাদের ভেতরে একটা বিষয় কাজ করেছে- আমরা যেন পরিকল্পনামত খেলতে পারি। যেমন ব্যাটিংয়ের সময় লক্ষ্য ছিল, লম্বা সময় ধরে খেলার। বোলিংয়ে একটা জায়গায় বল করা।’

তিনি আরো বলেন, ‘বোলারদের প্রতি বার্তা ছিল- আমরা শেষ চারদিন যেভাবে বল করেছি, সেভাবেই যেন করি। উইকেটের জন্য যাবো না। পরিকল্পনা ছিল, উইকেটের জন্য বল করতে গিয়ে যেন রান না দেই। শেষ চারদিন যে ধারায় খেলেছি সেটাই অনুসরণ করা, চাপ তৈরি করা। ফল আসলে আসবে, না আসলে নেই।’

চতুর্থ দিন শেষে জয়ের স্বপ্ন দেখতে শুরু করে বাংলাদেশ। কারন দ্বিতীয় ইনিংসে ১৩০ রানে পিছিয়ে থেকে চতুর্থ দিন শেষে ৫ উইকেটে ১৪৭ রান তুলেছিলো নিউজিল্যান্ড। তাই ৫ উইকেট হাতে নিয়ে মাত্র ১৭ রানে এগিয়েছিলো কিউইরা। এতে বাংলাদেশের জয়ের ভালো সুযোগ তৈরি হয়। তাই পঞ্চম দিন মাঠে কি হবে, কিভাবে ম্যাচ জয় করা যায়, সেই চিন্তায় রাতে ঘুম হয়নি মুমিনুলের। এমন তথ্যও দিয়েছেন তিনি।

মুমিনুল বলেন, ‘আমি ভাষায় প্রকাশ করতে পারবো না, কি অনুভব করছি। এটা এক কথায় অবিশ্বাস্য। সত্যি কথা বলতে, আমি গতকাল রাতে ঘুমোতে পারিনি, আজ কি হবে সেটা ভেবে। যখনই ৫ উইকেট পড়ে গেল, মনে হয়েছে তারা কম রানেই অলআউট হয়ে যেতে পারে।’
চতুর্থ দিন ৪ উইকেটের পর পঞ্চম দিন আরো ২ উইকেট শিকার করে নিউজিল্যান্ডকে ১৬৯ রানে অলআউট করতে বড় ভূমিকা রাখেন পেসার এবাদত হোসেন। ম্যাচে ৬ উইকেট নেয়া এবাদতের প্রশংসাও করলেন মুমিনুল। তবে এবাদতের পারফরমেন্সে বিস্মিত নন তিনি।

মুমিনুল বলেন, ‘আমি বিস্মিত নই। আমি জানি, দলের অনেকেই জানে, এবাদত যে মাপের বোলার, হয়তো বল এক জায়গায় করতে পারে না, যেদিন ভালো জায়গায় বল করবে, ওই দিন প্রতিপক্ষ শেষ। কিন্তু তার এটা ধারাবাহিক ছিল না। সর্বশেষ ২-৩ বছর ধরে আমাদের বোলিং কোচ অনেক পরিশ্রম করছে তাকে নিয়ে। গত ১-২ বছর ধরে টানা টেস্ট ম্যাচ খেলেছে। এটার ফল ম্যাচ জিতিয়ে দিয়েছে সে।’

তিনি বলেন, ‘কালকে যখন এবাদত যখন দ্রুত চারটি উইকেট তুলে নিলো, তখন আমাদের কাছে মনে হলো যে এই টেস্ট ম্যাচটা আমরা হয়তো জেতার দিকে যাচ্ছি। আজকে সকালে যখন অল আউট হলো, তখন আরও নিশ্চিত হয়েছি। আমাদের মধ্যে আগে থেকে কোনো উত্তেজনা ছিল না। আমরা শান্ত থাকার চেষ্টা করেছি।’ সূত্র : বাসস।

এবিএস

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *