সোমবার ১৭, জানুয়ারী ২০২২
EN

এবারও এক হাজার ফিলিস্তিনিকে হজ করাবেন সৌদি বাদশাহ

ফিলিস্তিনের স্বাধীনতা সংগ্রামে শাহাদতবরণকারী শহীদ পরিবারের এক হাজার সদস্য চলতি বছর হজ পালন করবেন। সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ তাদের হজ করানোর ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন।

ফিলিস্তিনের স্বাধীনতা সংগ্রামে শাহাদতবরণকারী শহীদ পরিবারের এক হাজার সদস্য চলতি বছর হজ পালন করবেন। সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ তাদের হজ করানোর ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। সৌদি সরকারের পক্ষ থেকে ওই ফিলিস্তিনিদের হজের যাবতীয় খরচ বহন করা হবে। খবর আরব নিউজের।

বাদশাহর এ উদ্যোগের প্রশংসা করে সৌদি আরবের ধর্মবিষয়ক মন্ত্রী ও পবিত্র দুই মসজিদের প্রধান তত্ত্বাবধায়ক শেখ সালেহ বিন আবদুল আজিজ আল শেখ বলেছেন, এর মাধ্যমে দুই দেশের শক্তিশালী ও বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক আরো জোরদার হবে। নির্যাতিত ফিলিস্তিনিদের প্রতি অতীতের মতো সৌদি সরকার ও জনগণের সব ধরনের সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে। এ সহযোগিতা তাদের প্রাপ্য।

বিশ্বের নানা প্রান্ত থেকে আগত হাজিদের সুষ্ঠুভাবে হজ সম্পাদনের ক্ষেত্রে ব্যবস্থাপনার উন্নয়ন ও বিশেষ করে ফিলিস্তিনি মুসলমানদের জন্য সৌদি বাদশাহর এ প্রচেষ্টাকে মহান সেবা বলে মন্তব্য করেছেন শেখ সালেহ। তিনি বলেন, সৌদি শাসকের এ ধরনের দৃষ্টিভঙ্গি ফিলিস্তিন এবং ফিলিস্তিনি জনগণের প্রতি ইসলামি ভ্রাতৃত্বেরই প্রকাশ।

শেখ সালেহ আরও বলেন, জেরুজালেম এবং ফিলিস্তিনি ভূখণ্ড রক্ষার জন্য দেশটির জনগণ যে ত্যাগ স্বীকার করছে; সেজন্য তারা সব ধরনের সম্মানের দাবিদার। বাদশাহর এ প্রচেষ্টা ফিলিস্তিনি শহীদ পরিবারের দুর্ভোগ লাঘবে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে। এ উদ্যোগ ফিলিস্তিনিদের প্রতি সৌদি বাদশাহর অকুন্ঠ সমর্থনের প্রমাণ।

উল্লেখ্য যে, দীর্ঘদিন ধরে চলে আসা রীতি অনুযায়ী বিভিন্ন দেশের কিছু নাগরিককে প্রতি বছরই সৌদি সরকারের আমন্ত্রণে হজ পালনের ব্যবস্থা করা হয়। তবে একসঙ্গে ১ হাজার জনকে হজ করানোর ব্যবস্থা নেওয়া হয় ২০১৫ সালে প্রথম। এর ধারাবাহিকতায় এবারও ফিলিস্তিনের ১ হাজার নাগরিক হজ পালনের সুযোগ পেলেন। ইতোমধ্যে তারা সৌদি আরব পৌঁছেছেন।

সালমান বিন আবদুল আজিজ আল সৌদ ২০১৫ সালের ২৩ জানুয়ারি বাদশাহ আবদুল্লাহ বিন আবদুল আজিজের মৃত্যুর পর নতুন বাদশাহ হিসেবে ক্ষমতা লাভ করেন। প্রগতিশীল ও বাস্তব জ্ঞানসম্পন্ন বলে বেশ সুনাম রয়েছে বাদশাহ সালমানের।

এদিকে, হাজিদের সহায়তার জন্য চলতি হজ মৌসুমে সৌদি আরবে ৭শ’অনুবাদক নিয়োগ দিয়েছে দেশটির সরকার। হজের সময় হজ পালনকারীদের দিক-নির্দেশনাসহ বিভিন্ন ধরনের সুবিধা পৌঁছে দেওয়ার ক্ষেত্রে তারা দায়িত্ব পালন করবেন। এই অনুবাদকদের অধিকাংশই দেশটির বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। এর মাঝে বেশ কয়েকজন বাংলাদেশিও রয়েছেন। বিশ্বের অন্তত ৩০ ভাষায় হাজিদেরকে সহায়তা করবেন তারা।

এফএফ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *