শুক্রবার ৩, ডিসেম্বর ২০২১
EN

কারাগারে ২০ বছর পার, জানলেন নির্দোষ

স্ত্রী ও কন্যা শিশুকে হত্যার দায়ে নিম্ন আদালতে মৃত্যুদণ্ডের রায় হয়েছিল বাগেরহাটের শেখ জাহিদের। রায়ের পর কন্ডেম সেলেই কেটে গেছে কুড়ি বছর। অবশেষে আপিল বিভাগের রায়ে প্রমাণ হলেন নির্দোষ।

স্ত্রী ও কন্যা শিশুকে হত্যার দায়ে নিম্ন আদালতে মৃত্যুদণ্ডের রায় হয়েছিল বাগেরহাটের শেখ জাহিদের। রায়ের পর কন্ডেম সেলেই কেটে গেছে কুড়ি বছর। অবশেষে আপিল বিভাগের রায়ে প্রমাণ হলেন নির্দোষ।

মামলার বিবরণ অনুযায়ী  ১৯৯৭ সালের জানুয়ারিতে বাগেরহাটের ফকিরহাট থানাধীন এলাকার শেখ জাহিদের স্ত্রী রহিমা ও দেড় বছরের কন্যা ঘুমন্ত অবস্থায় খুন হয়। এই হত্যাকাণ্ডের পর ওই জাহিদের নামে ওইদিনই মামলা করা হয়।

২০০০ সালের জুন মাসে বাগেরহাট দায়রা জজ আদালত শেখ জাহিদকে মৃত্যুদণ্ড দেন। এরপর থেকে কারাগারের কন্ডেম সেলে ছিলেন শেখ জাহিদ।

শেখ জাহিদের মৃত্যুদণ্ড অনুমোদনের জন্য হাইকোর্টে আসার পর ২০০৪ সালে তার মৃত্যুদণ্ড বহাল রাখা হয়। এরপর মামলাটি আপিল বিভাগে আসে।

এর মাঝে দীর্ঘ সময় কেটে যাবার পর গত সপ্তাহে প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগের নজরে পড়ে মামলাটি। দীর্ঘ সময় ধরে ঝুলে থাকা এই মামলার নিষ্পত্তির জন্য জাহিদের পক্ষে আইনজীবী নিয়োগ দেয়া হয়।

তখনই উঠে আসে এই মামলার নানা অসঙ্গতি। ৮ বার তদন্ত কর্মকর্তা পরিবর্তন হলেও বিষয়টি প্রমাণে ব্যর্থ হয় তারা। তাই সর্বোচ্চ আদালত থেকে জাহিদকে খালাস দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

আগামী বুধ বা বৃহস্পতিবারে রায়ের অনুলিপি কারাগারে পাঠানো হবে বলে জানিয়েছেন সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি এ এম আমিন উদ্দিন।

এমআর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *