সোমবার ৬, ফেব্রুয়ারি ২০২৩
EN

কাল-পরশু গণস্বাক্ষর ৯ জানুয়রির মানববন্ধন

ঢাকা: আগামী কাল মঙ্গলবার ও বুধবার গণস্বাক্ষর ও পরের দিন ৯ জানুয়ারি বৃহস্পতিবার মানববন্ধন কমসূচীর ঘোষণা করেছেন বাংলাদেশ সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতি।

[b]ঢাকা:[/b] আগামী কাল মঙ্গলবার ও বুধবার গণস্বাক্ষর ও পরের দিন ৯ জানুয়ারি  বৃহস্পতিবার মানববন্ধন কমসূচীর ঘোষণা করেছেন বাংলাদেশ সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতি। সোমবার দুপুর সোয়া ১টার দিকে সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির দক্ষিণ হলে এই কর্মসূচীর ঘোষণা করেছেন আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট এজ মোহাম্মদ আলী। গত ২৯ ডিসেম্বর রোববার ও ৩০ ডিসেম্বর সোমবার পুলিশের ‘সহায়তায়’ বিএনপি জামায়াতের আইনজীবীদের উপর সরকার সমর্খকদের হামলায় দায়ীদের বিচারের দাবিতে সোমবার দুপুরে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির ব্যানারে এক সাধারণ সভায় তিনি এই কর্মসূচী ঘোষণা করেন। তিনি আরও বলেন, ৮ জানুয়ারি সুপ্রিমকোর্টের সাবেক সভাপতি, সম্পদক এবং সুপ্রিমকোর্টের সাবেক বিচারপতিদের সঙ্গেও বৈঠক করার সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন তিনি।   ওই কর্মসূচীতে তিনি আরো বলেন, ২৯ ডিসেম্বর রোববার সুপ্রিমকোর্টের বাইরে থেকে আওয়ামলীগের সরকারী দলীয়রা কোর্টের বাইরে থেকে মহিলা আইনজীবীর উপরে কলংঙ্কজন হামলার ব্যপারে গত দুই জানুয়ারি অনশনে ৭২ ঘন্টার মধ্যে তদন্ত কমিটি করে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বলেছিলাম। কিন্তু দু:খের সাথে বলতে হচ্ছে প্রধান বিচারপতি মো. মোজাম্মেল হোসন তদন্ত কমিটি করা তো দূরে থাক কোন ব্যবস্থা গ্রহণের পদক্ষেপ নেন নি। তাই এই কর্মসূচীর ঘোষণা দিলাম। এই কর্মসূচীর পরেও যদি কোন ব্যবস্থা না নেয়া হয় তার পরে আগামী ১২ জানুয়ারি সাধারণ সভায় পরবর্তী কর্মসূচী ঘোষণা করা  হবে। এ সময় আইনজীবী সমিতির সভাপতিসহ সমিতির অন্যান্য সদস্যের সঙ্গে বিএনপি জামায়াতের প্রায় শতাধিক আইনজীবী উপস্থিত ছিলেন। এর আগে হামলায় দায়ীদের বিচার চেয়ে গত মঙ্গলবার ২ জানয়ারি অনশন কর্মসূচী পালন করেছেন সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির ব্যানারে। তাছাড়া সাধারণ সভায় বক্তৃতা করেন, অ্যাডভোকেট সাইফুর রহমান, ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল, অ্যাডভোকট মির্জা আল মাহমুদ, শেখ মো.আলী প্রমুখ। তারা বলেন, গত ২৯ ও৩০ ডিসেম্বর আমাদের উপর আক্রমণ চালানো হয়েছে। সেটা করা হয়েছে পুলিশের সহায়তায়। আইন শৃঙ্খলা রক্ষকারী বাহিনী সন্ত্রাসীদের সহায়তা দিয়ে সুপ্রিম কোর্টে প্রবেশ করতে দিয়েছে। পুলিশ কিন্তু সরকারি ক্যাডার বাহিনী হিসাবে ব্যবহৃত হচ্ছে। “আমরা এই ঘটনায় বিচার বিভাগীয় তদন্ত চেয়েছি। সেই দিকে মনোযোগ না দিয়ে আমাদেরকেই দোষারোপের চেষ্টা করা হচ্ছে।” “সুপ্রিম কোর্টের পবিত্রতা ও আইনের শাসনের ব্যাপারে আমরা কোন ধরণের আপোষ করবো না। আমরা দৃপ্ত পদক্ষেপে এগিয়ে যাবো।” “বিচারেরর দাবি আদায়ে ৯ জানুয়ারি সকাল ১০টায় অনশন পালন করা হবে। দলমত নির্বিশেষে সকলকে এই কর্মসূচী পালন করার জন্য বলেন।”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *