সোমবার ১৭, জানুয়ারী ২০২২
EN

খোঁজ নেই ৭ হাজার ব্যালট বাক্সের

দশম জাতীয় সংসদ ও সদ্য সমাপ্ত চতুর্থ উপজেলা নির্বাচনে সহিংসতার কারণে প্রায় ৬ হাজার ৮ শত স্বচ্ছ ব্যালট বাক্স খোয়া গেছে। অধিকাংশ ব্যালট বাক্স কেন্দ্র থেকে ছিনতাই বা আগুনে পোড়ানো হয়েছে। দীর্ঘ সময় পরেও ছিনতাই হওয়া সেই সব বক্স উদ্ধার করতে পারেনি নির্বাচন কমিশন (ইসি)। যার আনুমানিক মূল্য দুই কোটি টাকা। গত সপ্তাহে ইসিতে জেলা কর্মকর্তাদের পাঠানো রিপোর্ট থেকে এ তথ্য জানা গেছে

দশম জাতীয় সংসদ ও সদ্য সমাপ্ত চতুর্থ উপজেলা নির্বাচনে সহিংসতার কারণে প্রায় ৬ হাজার ৮ শত স্বচ্ছ ব্যালট বাক্স খোয়া গেছে। অধিকাংশ ব্যালট বাক্স কেন্দ্র থেকে ছিনতাই বা আগুনে পোড়ানো হয়েছে। দীর্ঘ সময় পরেও ছিনতাই হওয়া সেই সব বক্স উদ্ধার করতে পারেনি নির্বাচন কমিশন (ইসি)। যার আনুমানিক মূল্য দুই কোটি টাকা। গত সপ্তাহে ইসিতে জেলা কর্মকর্তাদের পাঠানো রিপোর্ট থেকে এ তথ্য জানা গেছে।   ইসি সূত্র জানায়, জেলা কর্মকর্তাদের রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে-দশম সংসদ ও উপজেলা নির্বাচনে ব্যাপক সহিংসতা হয়েছে। এ কারণে পুড়িয়ে ফেলা হয়েছে ২ হাজার ৮৯৪টি ব্যালট বাক্স। আর ভেঙে ফেলা হয়েছে ১ হাজার ৪১৪টি। এছাড়া ভোট কেন্দ্র থেকে ছিনতাই করা হয়েছে ৩৪৯২টি স্বচ্ছ ব্যালট বক্স । [img]http://www.timenewsbd.com/contents/public/201406/1401882070.jpg[/img] সূত্র জানায়, ছিনতাই হওয়া ব্যালট বাক্স উদ্ধারের জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে সহায়তা চেয়েছিল নির্বাচন কমিশন। কিন্তু তারা একটি বাক্সও উদ্ধার করতে পারেনি। বর্তমানে ইসির গুদামে ২ লাখ ৯০ হাজার ৮২৫টি ব্যালট বাক্স মজুদ রয়েছে । এ বিষয়ে দুই জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান,৫ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন ও ফেব্রুয়ারি থেকে মার্চ পর্যন্ত পাঁচ দফায় অনুষ্ঠিত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে সহিংসতা হয়েছে । এতে আরও কয়েক হাজার ব্যালট বক্স কেন্দ্র থেকে ছিনতাই,ভাংচুরসহ পোড়ানো হয়েছে। তবে নির্বাচন কমিশন থেকে কমিয়ে রিপোর্ট তৈরি করে পাঠানোর নির্দেশ দেয়া হয়। সেই নির্দেশনা অনুসারে রিপোর্ট তৈরি করে পাঠানো হয়েছে বলে সূত্র দাবি করেছে।   এ বিষয়ে নির্বাচন কমিশনের কয়েক জন কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করে জানান, বিএনপি নেতৃত্বাধীন ১৯ দল ৫ জানুয়ারি সংসদ নির্বাচন বানচাল করতে ব্যাপক সহিংসতা চালায়। এ হামলা ভোটের আগের দিন এবং ভোটের দিন কেন্দ্রে কেন্দ্রে চালানো হয়। ফলে কয়েক হাজার ব্যালট বাক্সে নষ্ট হয়েছে। অপর দিকে চতুর্থ উপজেলা নির্বাচনে বেশিরভাগ স্থানে ভোট কেন্দ্রে হামলা ও ভাংচুর চালায় ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা। এ দুই নির্বাচনে প্রায় ১২ হাজারের বেশি ব্যালট বাক্স নষ্ট হয়েছে । এ বিষয়ে নির্বাচন কমিশনের ভারপ্রাপ্ত সচিব মো. সিরাজুল ইসলাম বলেন, 'এ মুহূর্তে আমার কাছে এ সংক্রান্ত কোনো তথ্য নেই। পরে যোগাযোগ করা হলে বিষয়টি জানানো হবে।' [b]ঢাকা, এএম, ৪ জুন (টাইমনিউজবিডি.কম) // জেএ[/b]

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *