মঙ্গলবার ৯, অগাস্ট ২০২২
EN

চলন্ত বাসে ডাকাতি-গণধর্ষণের ঘটনায় গ্রেপ্তার আরও ২

টাঙ্গাইলে ঈগল পরিবহনের একটি চলন্ত বাসে অস্ত্রের মুখে ডাকাতি ও এক নারীকে দলবেঁধে ধর্ষণের ঘটনায় আরও দুই অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করেছে, জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

গতকাল বৃহস্পতিবার (৪ জুলাই) দিবাগত গভীর রাতে গাজীপুরের কালিয়াকৈর বাসস্ট্যান্ড এবং সোহাগ পল্লী থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

শুক্রবার সকালে পুলিশ সূত্রে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে। দুপুর ১২টার দিকে পুলিশ সুপার সংবাদ সম্মেলনে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানাবেন।

সূত্র জানায়, বৃহস্পতিবার গ্রেপ্তার হওয়া রাজা মিয়ার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ডিবি পুলিশ অভিযান চালিয়ে এই দুজনকে গ্রেপ্তার করে। তারা ধর্ষণের ঘটনায় সরাসরি সম্পৃক্ত থাকতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এর আগে এ ঘটনায় জড়িত রাজা মিয়াকে (৩২) গতকাল বৃহস্পতিবার ভোরে টাঙ্গাইল শহরের দেওলা এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। আদালতে তুলে তার সাত দিনের রিমান্ড চাইলে বিচারক পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। অন্যদিকে ধর্ষণের শিকার নারী আদালতে ২২ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন।

টাঙ্গাইলের পুলিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কায়সার জানান, রাজা মিয়া ডাকাতির সময় নিয়ন্ত্রণে নেওয়া বাসটি চালাচ্ছিলেন বলে জানিয়েছেন। এ ছাড়া তিনি পুলিশের কাছে গুরুত্বপূর্ণ আরও তথ্য দিয়েছেন। তাকে আরও জিজ্ঞাসাবাদ প্রয়োজন।

গত মঙ্গলবার রাতে ঈগল এক্সপ্রেসের একটি বাস কুষ্টিয়ার ৩০-৩৫ জন যাত্রী নিয়ে ঢাকার দিকে যাচ্ছিলেন। পথে যাত্রীবেশে ডাকাত দল উঠে প্রথমে গাড়ির নিয়ন্ত্রণ নেয়। পরে যাত্রীদের হাত-পা ও চোখ বেঁধে মারধর এবং লুটের পর এক নারীকে দলবেঁধে ধর্ষণ করে। ডাকাত দল বাসটি ঘুরিয়ে টাঙ্গাইল-ময়মনসিংহ সড়কের মধুপুর উপজেলার রক্তিপাড়া জামে মসজিদের সামনে ফেলে রেখে নেমে যায়।

ধর্ষণের শিকার নারীর ডাক্তারি পরীক্ষায় ধর্ষণের আলামত মিলেছে। টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে বৃহস্পতিবার দুপুরে তার ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়। এরপর তাকে আদালতে পাঠানো হয়। ঘটনার বর্ণনা দিয়ে আদালতে ২২ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন ভুক্তভোগী ওই নারী।

এমআর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *