সোমবার ৪, জুলাই ২০২২
EN

জামালপুরে ত্রাণ কার্যক্রমে ডা: শফিকুর রহমান

আমীরে জামায়াত ডা. শফিকুর রহমান বলেন, “কাল এখানে শুকনা ছিল, আজ নদীর পানিতে সব কিছু ধ্বংস হয়ে গেছে। আপনাদের কোনো কষ্ট দূর করার শক্তি আমাদের নেই। এত কষ্ট বুকে নিয়ে আপনারা যে আলহামদুলিল্লাহ বললেন, সেজন্য আমি মহান রবের নিকট দোয়া করি, তিনি যেন আপনাদের সকলের উপর সন্তুষ্ট হয়ে যান। আল্লাহ পাক আপনাদের উপর তার রহমত নাযিল করুন ও আপনাদের তাইয়েব হায়াত দান করুন।

আমরা মূলত আপনাদের ত্রাণ দিতে আসিনি। আমরা আপনাদের দেখতে এসেছি। আমি যে জিনিসগুলো নিয়ে এসেছি এগুলো রিলিফ নয়। আপনারা আমাদের আপনজন। আপনজনকে দেখতে গেলে সাথে কিছু নিয়ে যেতে হয়। সেই হিসেবে এগুলো আমি আপনাদের জন্য উপহার হিসেবেই নিয়ে এসেছি। এ সামান্য জিনিস দিয়ে আপনাদের সমস্যার সমাধান হবে না। একমাত্র আল্লাহ পাক আপনাদের সমস্যার সমাধান করতে পারবেন। যার হাতে আমাদের জীবন-মৃত্যু, যিনি আমাদের সৃষ্টি করেছেন, রিযিক, ইজ্জত, কেবল তিনিই পারবেন আমাদের মাথার ওপর থেকে সকল বালা-মুসিবত সরিয়ে নিতে। সেই মহান আল্লাহর নিকটই আমরা ধরনা দিব সকল বিপদ-আপদে।

জামায়াতে ইসলামী আপনাদেরই দল। আপনাদের পাড়া-প্রতিবেশি, আত্ময়-স্বজন, ভাই-ব্রাদার নিয়েই তো জামায়াতে ইসলামী। জামায়াতে ইসলামী মানুষের জন্য ২টি উদ্দেশ্য নিয়ে কাজ করে। প্রথমত দেশের একজন মানুষ যেন সম্মানের সাথে মানুষ হিসেবে বাঁচতে পারে, দেশের প্রতিটি নাগরিক যেন তাদের প্রাপ্য অধিকার থেকে বঞ্চিত না হয়। আমাদেরকে যেন আল্লাহ ছাড়া আর কাউকে ভয় করতে না হয়, আর কারো কাছে মাথা নত করতে না হয়। আল্লাহ ছাড়া আর কারো কাছে করুনা ভিক্ষা করতে না হয়।

মূলত জামায়াতে ইসলামী এমনই একটি কল্যাণ মূলক রাষ্ট্র ব্যবস্থা চায়। দ্বিতীয়ত আমাদের সকলকেই এই দুনিয়া থেকে চলে যেতে হবে। তাই জামায়াতে ইসলামী চেষ্টা করে মানুষ যেন দুনিয়াতে আল্লাহর হুকুম-আহকাম মেনে চলে এবং মানুষের কল্যাণ সাধন করে। জামায়াতে ইসলামী দেশে এমনই একটি সুন্দর পরিবেশ তৈরি করতে চায়, যেখানে মানুষ আল্লাহর পথে চলতে কোনো বাধার সম্মুখীন হবে না। মানুষে মানুষে কোনো ভেদাভেদ থাকবে না। সকলেই সুখে-শান্তিতে বসবাস করবে।

আমীরে জামায়াত ডা. শফিকুর রহমান ২৩ জুন জামালপুর জেলার দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন করেন এবং বন্যা কবলিত মানুষের মধ্যে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণকালে উপরোক্ত কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, আমরা আপনাদেরকে দীর্ঘক্ষণ ধরে এখানে বসিয়ে রেখেছি, সেজন্য আপনাদের কাছে দুঃখ প্রকাশ করছি এবং লজ্জাবোধ করছি। আমাদের উচিত ছিল এই জিনিসগুলো আপনাদের ঘরে ঘরে নিয়ে পৌঁছে দেয়া। কিন্তু সময় স্বল্পতার কারণে আমাদের পক্ষে তা সম্ভব নয়। তাই আমরা আপনাদের প্রতি কৃতজ্ঞ যে, আপনারা আমাদের ডাকে সাড়া দিয়ে এখানে এসেছেন। আপনাদের জন্য বুক ভরে দোয়া করি। আপনারাও আমাদের জন্য দোয়া করবেন।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের আমীর নূরুল ইসলাম বুলবুল, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সেক্রেটারি ড. সামিউল হক ফারুকী, জামালপুর জেলা আমীর নাজমুল হক সাঈদী, জামালপুর জেলা সেক্রেটারি হুমায়ুন কবির, ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের সহকারী সেক্রেটারি এডভোকেট ড. হেলাল উদ্দিন, ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের কর্মপরিষদ সদস্য আব্দুস সালামসহ দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ। (প্রেস বিজ্ঞপ্তি)

এইচএন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *