বুধবার ১, ফেব্রুয়ারি ২০২৩
EN

ঝড়ের কবলে পড়ে ৪৪ জেলে ভারতের কারাগারে

বঙ্গোপসাগরে মাছ ধরতে গিয়ে প্রচণ্ড ঝড়ের কবলে পড়ে ট্রলারডুবিতে ভেসে ভারতের জলসীমায় পৌঁছে যায় ৪৪ বাংলাদেশী জেলে। ভারতে উদ্ধার এসব জেলেকে ফেরত না দিয়ে কারাগারে প্রেরণ করেছে ভারতীয় কর্তৃপক্ষ।

ফলে ওই জেলেদের দেশে ফিরিয়ে আনা অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে বলে অভিযোগ করেছেন সংশ্লিষ্ট ট্রলার মালিকেরা।

এদিকে ঝড়ের কবলে পড়ে ভারতে ভেসে যাওয়া বহু জেলে বছরের পর বছর আটকে থাকার প্রতিবাদে এবং তাদের দেশে ফিরিয়ে আনার দাবিতে আজ সোমবার মানববন্ধন করবেন উপকূলবাসী ও মৎস্যজীবীরা।

গত শুক্রবার কায়াকাটা সংলগ্ন বঙ্গোপসাগরে মাছ ধরার সময় তুমুল ঝড়ের মধ্যে পড়ে অনেকগুলো মাছধরা ট্রলার। প্রচণ্ড ঝড়ে ট্রলারডুবিতে পড়া জেলেরা ভেসে ভেসে ভারতীয় পানিসীমায় চলে যান। তাদেরকে উদ্ধার করে ভারতীয় উদ্ধারকারী ট্রলার।

সোমবার বরগুনা জেলা মৎস্যজীবী ট্রলার মালিক সমিতির সভাপতি গোলাম মোস্তফা চৌধুরী আক্ষেপ করে নয়া দিগন্তকে জানান, ভাই কি যে বলি, এখন তো বেঁচে থেকেও না বাঁচার মতো রয়েছি। সম্প্রতিতে ঝড়ের কবলে পরে বরগুনার ৪৪ জেলে বাংলাদেশী জলসীমা অতিক্রম করে ভারতীয় সীমায় অনুপ্রবেশ করলে তাদের ফেরত না দিয়ে এখন তাদের স্থান হয়েছে কারাগারে। যার কারণে বরাবরের মতো এবারও পাশের বন্ধুরাষ্ট্র ভারতের কর্মকর্তাদের আচরণে আমরা ক্ষুব্ধ।

মোবাইল ফোনের মাধ্যমে তিনি আরো বলেন, সাগরে ট্রলারডুবির ঘটনার পর পরই আমি ভারতে আসি জেলেদের ফিরিয়ে নিতে। অথচ এখন পর্যন্ত জেলেদের সাথে আমাদের দেখা করতেও দেয়নি। বরাবরের মতো এবারও তারা একই আচরণ করছে। এ পর্যন্ত পাওয়া তথ্যে পাথরঘাটার ৪৪ জন জেলে ভারতে অবস্থান করছেন।

এ সময় তিনি আরো জানান, গভীর সমুদ্রে মাছধরার সময় ঝড়ের কবলে পড়ে ট্রলারডুবির ঘটনায় ভারতে থাকা ৪৪ জেলের দেশে ফেরা নিয়ে অনিশ্চয়তার মধ্যে পড়েছে।

স্বজন ও ট্রলার মালিকদের মতে, সাগরে থাকলে হয়তো ভাসতে ভাসতে এলেও অন্তত লাশটাও আসতো। গত কয়েকদিনে সাগর উত্তাল হওয়ায় অনেক ট্রলারডুবি এবং জেলে নিখোঁজের ঘটনা ঘটে। পাশাপাশি প্রচণ্ড ঝড়ে পড়ে জেলেরা ভেসে ভারতের মধ্যে ঢুকে পড়ে।

বরগুনা জেলা মৎস্যজীবী ট্রলার মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মাসুম আকন জানান, এসব জেলেদের ফিরিয়ে আনতে জেলে এবং ট্রলার মালিকদের পক্ষে জেলা মৎস্যজীবী ট্রলার মালিক সমিতির সভাপতি গোলাম মোস্তফা চৌধুরী ভারতে আছেন। কিন্তু জেলেদের ফিরিয়ে আনা তো দূরের কথা, অসুস্থ জেলেদের দেখতেও দেয়া হয়নি। এ কারণে আপাতত জীবিত উদ্ধার হওয়া ৪৪ জেলে দেশে ফিরিয়ে আনা অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে।

এ বিষয়ে বরগুনা জেলা প্রশাসক (ডিসি) মো: হাবিবুর রহমান বলেন, আমরা ট্রলার মালিক সমিতি ও জেলা মৎস্য বিভাগে জেলেদের তালিকা চেয়েছি। আমি তালিকা হাতে পেলেই ভারতে থাকা জেলেদের ফিরিয়ে আনতে আইনি প্রক্রিয়ায় যাবো।

প্রসঙ্গত, সাগরে ট্রলারডুবির ঘটনায় ভারতে ভেসে যাওয়া জেলেদের ফিরিয়ে আনা এবং বছরের পর বছর ধরে ভারতীয় কারাগারে থাকা জেলেদের ফিরিয়ে আনতে আজ সোমবার (২২ আগস্ট) সকাল ৯টার দিকে বৃহত্তম মৎস্য অবতরণ কেন্দ্রে মানববন্ধন করবেন মৎস্যজীবীরা। পরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বরাবরে স্মারকলিপি পাঠানোর কথা রয়েছে।

এইচএন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *