রবিবার ২, অক্টোবর ২০২২
EN

দুই মামলায় অভিযুক্ত খালেদা, ২১ এপ্রিল সাক্ষ্য গ্রহণ শুরু

বিএনপির চেয়ারপারসন ও ১৯ দলীয় জোট নেতা বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে করা জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলার অভিযোগ গঠন করা হয়েছে। দুই মামলাতেই আগামী ২১ এপ্রিল সাক্ষ্য গ্রহণ শুরু হবে

বিএনপির চেয়ারপারসন ও ১৯ দলীয় জোট নেতা বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে করা জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলার অভিযোগ গঠন করা হয়েছে। দুই মামলাতেই আগামী ২১ এপ্রিল সাক্ষ্য গ্রহণ শুরু হবে। আজ বুধবার ঢাকার ৩ নম্বর বিশেষ জজ আদালতের বিচারক বাসুদেব রায় এ আদেশ দেন। অপরদিকে, এই দুই মামলায় চার্জ শুনানির জন্য সময় চেয়ে বেগম খালেদা জিয়ার করা আবেদন খারিজ করে দিয়েছেন আদালত। আজ বেলা ১টার দিকে খালেদা জিয়া আদালতে হাজির হলে তার উপস্থিতিতে আবেদনের ওপর শুনানি হয়। শুনানি শেষে বিচারক এই খারিজ আদেশ দেন।   এরপরই আদালতে হইচই শুরু করেন আইনজীবীরা। এক পর্যায়ে আজই অভিযোগ গঠন বিষয়ক আদেশ দেয়া হবে জানিয়ে এজলাস ত্যাগ করেন বিচারক। এরআগে দুপুরে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার পক্ষে ঢাকার তৃতীয় বিশেষ জজ আদালতে দু’টি মামলায় সময় চেয়ে এই আবেদন করেন তার আইনজীবী তাহেরুল ইসলাম তৌহিদ। নিম্ন আদালতের এই খারিজ আদেশের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল করা হবে বলে জানিয়েছেন খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা। বিচারক খারিজ ও সাক্ষ্যগ্রহণের দিন ধার্য করে আদেশ দেয়ার সময় নিজে আদালত কক্ষে না এসে পেশকারের মাধ্যমে আদেশের কথা জানান বলেও অভিযোগ করে বেগম জিয়ার আইনজীবীরা। এদিকে আসামিপক্ষের আইনজীবীরা এই আদেশ পুনর্বিবেচনা জন্য নতুন করে সময় চেয়ে আবেদন করেছেন। মামলার বিচারকাজ চলাকালে খালেদা জিয়াকে বসার জন্য একটি চেয়ার দেওয়া হয়। এদিকে বেগম খালেদা জিয়ার নিম্ন আদালতে হাজির হওয়াকে কেন্দ্র করে আগে থেকেই আদালত চত্তরে ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। নিয়মিত নিরাপত্তা ব্যবস্থার পাশাপাশি মোতায়েন করা হয়েছে বিপুল সংখ্যক আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য। ভোর ৬টা থেকেই বিপুল সংখ্যক র্যারব-পুলিশের পাশাপাশি সাদা পোশাকে গোয়েন্দা সংস্থার সদস্য মোতায়েন রয়েছে। এদিকে বেগম খালেদা জিয়ার আদালতে আগমন উপলক্ষ্যে সকাল থেকেই বিএনপি ও অংগ সংগঠনের হাজার হাজার নেতাকর্মী আদালত ভবন এলাকায় জড়ো হয়েছেন। তারা বেগম খালেদা জিয়ার পক্ষে স্লোগান দিতে থাকেন। উল্লেখ্য, দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) দায়ের করা জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় আদালতে হাজিরা দিতে গত ১৬ ফেব্রুয়ারি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে শেষবারের মতো সময় দিয়েছিলেন আদালত। তখন ১৯ মার্চ মামলা দুটির অভিযোগ গঠনের শুনানির দিন নির্ধারণ করা হয়। ঢাকার ৩ নম্বর বিশেষ জজ আদালতের ভারপ্রাপ্ত বিচারক মো. রেজাউল ইসলাম ওই আদেশ দেন। এ পর্যন্ত জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় ৪১ ও জিয়া চেরিটেবল ট্রাস্ট মামলায় ১১ বার সময়ের আবেদন করেন খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা। ২০০৮ সালের ৩ জুলাই দুর্নীতি দমন কমিশন রমনা থানায় জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টে অনিয়মের অভিযোগে মামলা করে। জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের ২ কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৪৩ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ এনে খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে ২০০৮ সালের ৩ জুলাই রমনা থানায় মামলা করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। ২০০৯ সালের ৫ আগস্ট আসামিদের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়। অন্যদিকে ৩ কোটি ১৫ লাখ ৪৩ হাজার টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ২০১১ সালের ৮ আগস্ট তেজগাঁও থানায় জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্টের দুর্নীতির মামলাটি করা হয়। পরে ২০১২ সালের ১৬ জানুয়ারি আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা। দুটি মামলারই বাদী ও তদন্ত কর্মকর্তা দুর্নীতি দমন কমিশনের উপ-পরিচালক হারুনুর রশীদ। [b]ঢাকা, ১৯ মার্চ (টাইমনিউজবিডি.কম) // কেবি / জেআই[/b]

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *