বুধবার ৭, ডিসেম্বর ২০২২
EN

দুদকের ২ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলা

মিথ্যা প্রতিশ্রুতি দিয়ে ৩৭ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) ২ উপ-পরিচালকের বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা করেছে দুদক। মঙ্গলবার এ মামলা দায়ের করা হয়। এই বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দুদকের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মো. সাহাবুদ্দিন চুপ্পু

মিথ্যা প্রতিশ্রুতি দিয়ে ৩৭ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) ২ উপ-পরিচালকের বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা  করেছে দুদক। মঙ্গলবার এ মামলা দায়ের করা হয়। এই বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দুদকের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মো. সাহাবুদ্দিন চুপ্পু।

অভিযুক্ত ২ কর্মকর্তা হলেন, সমন্বিত জেলা কার্যালয়,বগুড়ায় কর্মরত মো.জাহিদ হোসেন এবং দুদকের প্রধান কার্যালয়ে (অনিষ্পন্ন বিষয়াদি সেল-২)  দায়িত্বরত মো. গোলাম মোস্তফা।

বিভাগীয় মামলায় ‘অসদাচারণ ও প্রতারণা’র দায়ে অভিযুক্ত ২ কর্মকর্তাকে কেনো চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হবে না এবং চাকরির বিধিমালার বিধান অনুযায়ী অন্য কোনো দন্ড প্রদান করা হবে না- তার কারণ দর্শাতে বলা হয়েছে।

আগামী ৭ কার্যদিবসের মধ্যে এর জবাব চাওয়া হয়েছে। অন্যাথায় ‘দুর্নীতি দমন কমিশন (কর্মচারি) চাকরি বিধিমালা-২০০৮’অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণের কথা বলা হয়।

বিভাগীয় মামলার অভিযোগে বলা হয়, অভিযুক্ত   ২ কর্মকর্তা রাজধানীর গুলশান-রোড নং-১০৭,বাড়ি নং-১৬ সিলভার ম্যাপল কনকর্ড ৩-বি, ঠিকানার জনৈক মোবারক হোসেনকে অবৈধ সম্পদ অর্জনের  স্বাক্ষর বিহীন বেনামী একটি অভিযোগের কপি প্রদান করেন।

পরে তারা মোবারক হোসেনকে ভীতি প্রদর্শন ও চাপ সৃষ্টি করে নগদ টাকা, দামী ক্যামেরা ও ল্যাপটপসহ ৩৭ লাখ টাকা হাতিয়ে নেন।

দুদক কর্মকর্তা  জাহিদ হোসেন ও  গোলাম মোস্তফা টাকার বিনিময়ে মোবারক হোসেনকে অভিযোগ থেকে পরিত্রাণ দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেন। পরে জাহিদ ও গোলাম মোস্তফা তাকে জানান যে, তদন্ত রিপোর্ট তৈরি হয়ে গেছে। উপ পরিচালক হানুর রশিদ রিপোর্টে স্বাক্ষর করবেন। তারা কথিত তদন্ত রিপোর্টের স্বাক্ষরবিহীন ২ অনুলিপি দেন মোবারককে। এই পর্যায়ে তারা মোবারকের কাছে আরো টাকা দাবি করলে, তিনি  টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করেন।

পরে মোবারক লেনদেনের বিষয়ে উপ পরিচালক হারুনুর রশিদের সঙ্গে সরাসরি কথা বলতে চাইলে জাহিদ ও গোলাম মোস্তফা ভিন্ন পথ ধরেন।  তারা মোবারককে জানান তদন্ত কর্মকর্তা হারুনুর রশিদ কথা দিয়েও কথা রাখেননি। তিনি আপনার বিরুদ্ধে মামলা করার অনুমতি চেয়ে প্রতিবেদন দাখিল করেছেন।

এ পর্যায়ে তারা মোবারককে আশ্বস্ত করেন যে, যে পরিচালক মামলার অনুমোদন দেবেন, তার সঙ্গে বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে। ফলে কোনো সমস্যা হবে না।

এদিকে জাহিদ ও গোলাম মোস্তফার সঙ্গে কথোপকথন রেকর্ড করেন মোবারক।  গত এক বছর যাবত তাদের মধ্যে এই কথোপকথন চলে। তবে গত ৬ মাসের কথাগুলো রেকর্ড করা হয়।

অভিযোগে  উল্লেখ করা হয়, তাদের কার্যকলাপ চাকরি শৃংখলা পরিপন্থি, যা দুর্নীতি দমন কমিশন (কর্মচারি) চাকরি বিধিমালা-২০০৮ এর ২(ঝ) বিধিমতে‘অসদাচারণ’এর শামিল। বিধিমালার ৩৯ (খ) ও(ছ) বিধি অনুযায়ী শাস্তিযোগ্য অপরাধ।

দুই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলার বিষয়ে জানতে চাইলে, দুদকের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মো. সাহাবুদ্দিন চুপ্পু  বলেন, অভ্যন্তরিন দুর্নীতি দমন প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে তাদের বিরুদ্ধে এই ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। অভিযোগ প্রমাণিত হলে তারা চাকরিচ্যুত হবেন।

ঢাকা, একে, ১৭ জুন (টাইমনিউজবিডি.কম)// কেএইচ

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *