শুক্রবার ২১, জানুয়ারী ২০২২
EN

দিনাজপুরে হঠাৎ বৃষ্টিতে বেড়েছে শীত, জনজীবন বিপর্যস্ত

দিনাজপুরে দেশের সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাতের পর আবারও উত্তরের হিমেল বায়ু সক্রিয় হওয়ায় কমতে শুরু করেছে তাপমাত্রা। একদিনের ব্যবধানে দিনাজপুরে তাপমাত্রা কমেছে ১ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ফলে পড়ছে তীব্র শীত।

দিনাজপুরে দেশের সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাতের পর আবারও উত্তরের হিমেল বায়ু সক্রিয় হওয়ায় কমতে শুরু করেছে তাপমাত্রা। একদিনের ব্যবধানে দিনাজপুরে তাপমাত্রা কমেছে ১ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ফলে পড়ছে তীব্র শীত। 

আগামী সপ্তাহে দিনাজপুরসহ এ অঞ্চলে আরও একটি শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাওয়ার আভাস দিয়েছে আবহাওয়া দপ্তর।

দিনাজপুর আঞ্চলিক আবহাওয়া অফিসের কর্মকর্তা তোফাজ্জল হোসেন জানিয়েছে, শুক্রবার সকাল ৬টায় দিনাজপুরে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ১২ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এর একদিন আগে বৃহস্পতিবার দিনাজপুরে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ১৩ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। 

তিনি জানান, শুক্রবার সকাল ৬টায় দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে দেশের সর্বোত্তরের উপজেলা পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায়। এ অঞ্চলে তাপমাত্রা ছিল ৭ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

আবহাওয়া অফিসের এ কর্মকর্তা জানান, বৃষ্টিপাতের পর হিমালয়ের পাদদেশে অবস্থিত এ জনপদে উত্তরের হিমেল বায়ু সক্রিয় হয়েছে। সকালে এ বাতাসের গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ৩-৪ কিলোমিটার। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে এর গতিবেগ বৃদ্ধি পেয়ে ঘণ্টায় ৮-১০ কিলোমিটার বেগে প্রবাহিত হয়। ইতোমধ্যে দেশের সর্বোত্তরে শুরু হয়েছে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ। আগামী সপ্তাহে দিনাজপুরেও এ শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানান তোফাজ্জল হোসেন। 

আবহাওয়া অফিসসূত্রে জানা যায়, বুধবার ২৪ ঘণ্টায় দিনাজপুরে বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয় ১৮ মিলিমিটার। এ সময়ে এটি দেশের সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়। তিনি জানান, জানুয়ারি মাসে গত ৬ বছরে এটিই সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত। এর আগে গত ২০১৫ সালের জানুয়ারি মাসে দিনাজপুরে সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয় ২০ মিলিমিটার। এর পর গত ৫ বছরে জানুয়ারি মাসে মোট বৃষ্টিপাতের পরিমাণ ছিল ৯ মিলিমিটার। 

চলতি পৌষ মাসের মাঝামাঝি সময়ে দিনাজপুরে প্রথম দফায় বৃষ্টিপাত হয়। চলতি পৌষ মাসের ১৫ তারিখেও দিনাজপুরে দেশের সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়। সেদিন ২৪ ঘণ্টায় বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয় ৫ দশমিক ২ মিলিমিটার।

এদিকে তীব্র শীতে দিনাজপুরসহ এ অঞ্চলে আবারও শীতের তীব্রতা বাড়তে শুরু করেছে। শীতে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে এ অঞ্চলের মানুষের স্বাভাবিক জীবনযাত্রা। অসহায় ও ছিন্নমূল মানুষের দুর্ভোগ বেড়েছে। সকালে কাজের সন্ধানে বের হওয়া নিম্নআয়ের কর্মজীবী মানুষ পড়েছে বিপাকে।

এমআর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *