বৃহস্পতিবার ২৭, জানুয়ারী ২০২২
EN

ন্যায় ও ইনসাফ ভিত্তিক রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠায় কাজ করে যাচ্ছি: বুলবুল

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের আমীর নূরুল ইসলাম বুলবুল আজ রাজধানীর ডেমরা এলাকায় শীতার্ত ভিন্নধর্মাবলম্বী মানুষের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করেন।

Bulbul (DCS 09 Jan 2022) (1).jpeg

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের আমীর নূরুল ইসলাম বুলবুল আজ রাজধানীর ডেমরা এলাকায় শীতার্ত ভিন্নধর্মাবলম্বী মানুষের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করেন।

এসময় তিনি বলেন, ইসলামকে পরিপূর্ণ জীবন বিধান হিসেবে মনোনিত করা হয়েছে। ইসলাম হচ্ছে সকল ধর্মের সকল মানুষের জন্য ছাতার মতো একটি নিরাপদ স্থল। যেখানে সকল মানুষ নিশ্চিন্তে আশ্রয় নিতে পারে।

এখানে সকল মানুষ তার ন্যায়সঙ্গত সকল কথা বলতে পারে। ইসলামের পথ নির্দেশনার জন্য আছে মহাগ্রন্থ আল কুরআন। যা সকল মানবজাতির জন্য হেদায়াতের গ্রন্থ। কোন পথ সঠিক কোন পথ বেঠিক তার সবই কুরআনে বলে দেয়া হয়েছে।

জামায়াতে ইসলামী ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের ডেমরা দক্ষিণ থানার উদ্যোগে আয়োজিত শীতবস্ত্র উপহার প্রদান অনুষ্ঠানে থানা আমীর হেলাল উদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন মহানগরীর কর্মপরিষদ সদস্য কামাল হোসাইন, ডেমরা পশ্চিম থানা আমীর আবু ওয়াফি, পূর্ব থানা আমীর মোজাফফর হোসাইন, আবু তালেব, মুকতাছেদুল হক, আব্দুল গাফফার, আনোয়ার হোসেন প্রমুখ।

নূরুল ইসলাম বুলবুল বলেন, বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী তার প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই ন্যায় ও ইনসাফ ভিত্তিক একটি কল্যাণরাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার জন্য আপ্রাণ চেষ্টা করে যাচ্ছে। সেই কল্যাণ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার ধারাবাহিকতায় আমরা যাবতীয় প্রচেষ্টা অব্যহত রেখেছি। সে লক্ষ্যে মানুষের পাশে থেকে জামায়াত কাজ করে যাচ্ছে।

যারা ক্ষতিগ্রস্ত ও বিপদগ্রস্থ হয়ে পড়েন তাদেরকে বিভিন্ন প্রকার সাহায্য সহায়তা আমরা প্রদান করে আসছি। বন্যা, মহামারী করোনা ভাইরাস, ডেঙ্গু, অগ্নিকান্ডসহ নানা প্রাকৃতিক দূর্যোগে যারা অসহায় হয়ে পড়েন তাদের পাশে আমরা সার্বিক সহযোগিতা নিয়ে থাকার চেষ্টা করি।

এটা জামায়াতের চার দফা কর্মসূচির মধ্যে অন্যতম কাজ। সমাজসেবা ও সমাজ সংস্কারমূলক একাজ দৃঢ়তার সাথে আমরা পরিচালনা করে যাচ্ছি।

তিনি আরও বলেন, মহান আল্লাহ রাসূলকে (সা) রাহমাতুল্লিল আলামিন উপাধিতে ভূষিত করেছেন। তিনি সমগ্র বিশ্ব মানবতার জন্য তিনি রহমত স্বরূপ। আল্লাহ তায়ালা আমাদের অন্য ধর্মের উপাসকের নামে গালি দিতে নিষেধ করেছেন এবং ধর্মের ব্যাপারে জোর জবরদোস্তী না করতেও নির্দেশনা দিয়েছেন।

আমরা বাংলাদেশকে সুখি ও সমৃদ্ধ রাষ্ট্র হিসেবে প্রতিষ্ঠার স্বপ্ন দেখি। যেখানে সকল নাগরিকের ন্যায্য অধিকার প্রতিষ্ঠিত হবে। সেই লক্ষ্যে আগামীর সমৃদ্ধ বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠায় তিনি জামায়াতে ইসলামীর ডাকে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহবান জানান। (প্রেস বিজ্ঞপ্তি)

এইচএন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *