বৃহস্পতিবার ২৬, মে ২০২২
EN

নারায়ণগঞ্জে কারখানায় আগুন, নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে ১৬ ইউনিট

নারায়ণগঞ্জ জেলার বন্দর উপজেলার মদনপুর এলাকায় জাহিন নিটওয়্যার্স লিমিটেড নামে রপ্তানিমুখী পোশাক কারখানায় অগ্নিকাণ্ড ঘটেছে।

নারায়ণগঞ্জ জেলার বন্দর উপজেলার মদনপুর এলাকায় জাহিন নিটওয়্যার্স লিমিটেড নামে রপ্তানিমুখী পোশাক কারখানায় অগ্নিকাণ্ড ঘটেছে।

আজ শুক্রবার ( ২৮ জানুয়ারি) বিকেলে উপজেলার মদনপুর এলাকায় অবস্থিত কারখানায় এ ঘটনা ঘটে। আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করে ফায়ার সার্ভিসের ১৬টি ইউনিট।

তবে শুক্রবার কারখানাটি বন্ধ ছিল। আগুনের সূত্রপাত কেন হয়েছে তা জানা যায়নি। রাত সাড়ে ৭টা পর্যন্ত আগুন নিয়ন্ত্রনে আসনি।

এদিকে রাত সাড়ে ৭টা পর্যন্ত হতাহতের কোনো খবর পাওয়া যায়নি। আগুনের সূত্রপাত সম্পর্কেও কিছু জানা যায়নি।

আগুনের খবর পেয়ে বন্দর, সোনারগাঁ ও মণ্ডলপাড়া ফায়ার স্টেশনের আটটি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে।
তাৎক্ষণিকভাবে আগুন লাগার কারণ ও ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ জানা যায়নি।

নারায়ণগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের উপসহকারী পরিচালক আব্দুল্লাহ আল আরেফীন জানান, বিকেল সাড়ে চারটার দিকে অগ্নিকাণ্ডের খবর পান। ১৫ মিনিটের মধ্যে ফায়ার সার্ভিসের প্রথম ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌঁছায়।

আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়েছে। পাশাপাশি তিনটি ভবনের প্রথম ও দ্বিতীয় তলায় আগুন জ্বলছে। তাদের দশটি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করে বলে জানান ফায়ার সার্ভিসের এই কর্মকর্তা।

তবে সোনারগাও ও রুপগঞ্জ থেকে আরো ৬টি ইউনিট পরে এসে আগুন নিয়ন্ত্রনে কাজ শুরু করে।

জাহিন নিটওয়্যারের মালিক বিটিএমএর সাবেক নেতা এম জামালউদ্দিন জানান, শুক্রবার কারখানা বন্ধ ছিল। বিকেল সাড়ে ৫টা থেকে আগুনের ভয়াবহতা আরো বাড়ছে। তবে কী কারণে আগুন লেগেছে তাৎক্ষণিকভাবে তিনি জানাতে পারেননি।

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ ফায়ার স্টেশনের ডিউটিম্যান মো. আকরাম হোসেন বলেন, সর্বশেষ (সন্ধ্যা পৌনে ৭টা) ১৬টি ইউনিট ঘটনাস্থলে কাজ করছে।

সোনারগাঁ থেকে তিনটি, ডেমরা থেকে দু’টি, আদমজী থেকে দু’টি, নারায়ণগঞ্জ সদর থেকে একটি, বন্দর থেকে একটি, গজারিয়া থেকে একটি, ঢাকা থেকে তিনটি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে কাজ করছে। নারায়ণগঞ্জ সদর থেকে ইউনিট সংখ্যা আরও বাড়ানো হতে পারে।

তিনি বলেন, শুক্রবার হওয়ায় কারাখানায় ছুটি ছিল। ভেতরে কেউ আছে কি না আমরা এখনো নিশ্চিত নই। ঘটনাস্থলে অ্যাম্বুলেন্স যাচ্ছে। আগুন নিয়ন্ত্রণে না এলে ইউনিট সংখ্যা আরো বাড়ানো হতে পারে।

প্রত্যক্ষদর্শী ইকবাল হোসেন জানায়, হঠাৎ করে আগুন দেখতে পাই। শুক্রবার হওয়ায় কারখানাটি বন্ধ তাই কোনো শ্রমিক ভেতরে নেই ।

আগুন অল্প সময়ের মধ্যে এক ভবন থেকে আরেক ভবনে ছড়িয়ে পড়ে। ভেতরে অনেক সুতা মজুদ রয়েছে বলে আমরা জানতে পেরেছি।

এইচএন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *