বুধবার ১, ফেব্রুয়ারি ২০২৩
EN

পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে নয়াদিল্লিতে আমন্ত্রণ

পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বিলাওয়াল ভুট্টো জারদারিকে ভারতে আমন্ত্রণ জানিয়েছে নয়াদিল্লি। এই আমন্ত্রণকে পারমাণবিক অস্ত্রধারী চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী এই দুই প্রতিবেশীর মধ্যে সম্পর্ক কিছুটা ভালো হওয়ার ইঙ্গিত বলে ধারণা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছে রয়টার্স।

বুধবার (২৫জানুয়ারী) পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বিলাওয়াল ভুট্টো জারদারিকে ভারতের গোয়ায় সাংহাই কো-অপারেশন অর্গানাইজেশনের (এসসিও) এর বৈঠকে অংশ নিতে আগামী মে মাসে আমন্ত্রণ জানিয়েছে।

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শেহবাজ শরিফ বিতর্কিত কাশ্মির অঞ্চলসহ অমীমাংসিত সকল ইস্যুতে ভারতের সাথে আলোচনার আহ্বান জানানোর কয়েকদিন পর বিলাওয়াল ভুট্টো জারদারিকে আমন্ত্রণ জানানো হলো বলে রয়টার্স এর প্রতিবেদনে জানিয়েছে।

রয়টার্স বলছে, জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠকের ফাঁকে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি সম্পর্কে পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বিলাওয়াল ভুট্টো জারদারির করা মন্তব্যের জন্য মাত্র এক মাস আগে ভারতে রাস্তায় প্রতিবাদ হয়েছিল। ভারত সেসময় জারদারির মন্তব্যকে ‘অসভ্য’ বলে অভিহিত করে।

এদিকে গোয়ায় আয়োজিত এসসিও পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের বৈঠকে বিলাওয়াল ভুট্টোকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে বলে গণমাধ্যমের প্রকাশিত প্রতিবেদন সম্পর্কে রয়টার্সের পক্ষ থেকে জানতে চাওয়া হলেও ভারত ও পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্ররা তাৎক্ষণিকভাবে কোনও জবাব দেননি।

এসসিওতে বর্তমানে আটটি সদস্য রাষ্ট্র রয়েছে। তারা হলো- চীন, ভারত, কাজাখস্তান, কিরগিজস্তান, রাশিয়া, পাকিস্তান, তাজিকিস্তান এবং উজবেকিস্তান। এই সংস্থার চারটি পর্যবেক্ষক রাষ্ট্র হলো- আফগানিস্তান, বেলারুশ, ইরান এবং মঙ্গোলিয়া। এই চারটি দেশই অবশ্য এসসিও’র পূর্ণ সদস্যপদ পেতে আগ্রহী।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস পত্রিকার খবর অনুযায়ী, ইসলামাবাদে ভারতীয় হাইকমিশন পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে এই আমন্ত্রণপত্র পাঠিয়েছে। পাকিস্তান এই বৈঠকে অংশ নিতে রাজি হলে বিলাওয়াল ভুট্টো জারদারি হবেন ১২ বছর পর ভারত সফর করা প্রথম পাকিস্তানি পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

রয়টার্স বলছে, ১৯৪৭ সালে ব্রিটিশ শাসন থেকে স্বাধীনতা লাভের পর থেকে পাকিস্তান ও ভারত তিনটি যুদ্ধ করেছে। এর মধ্যে বিতর্কিত কাশ্মির অঞ্চল ছিল উভয় দেশের দু’টি যুদ্ধের মূল কারণ।

ভারত-শাসিত কাশ্মিরে কয়েক দশক ধরে চলা বিদ্রোহের জন্য পাকিস্তানকে অভিযুক্ত করে থাকে নয়াদিল্লি। তবে ভারতের এই অভিযোগ বরাবরই অস্বীকার করে এসেছে পাকিস্তান।

এনএইচ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *