শুক্রবার ৩, ডিসেম্বর ২০২১
EN

ফটোসাংবাদিক কাজলের বিরুদ্ধে চার্জশীট দাখিলে বিএফইউজে’র উদ্বেগ

বিতর্কিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের তিনটি মামলায় ফটোসাংবাদিক শফিকুল ইসলাম কাজলের বিরুদ্ধে চার্জশীট দাখিল ও তা আদালত কর্তৃক গ্রহনের খবরে গভীর উদ্বেগ ও উৎকন্ঠা প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে)।

বিতর্কিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের তিনটি মামলায় ফটোসাংবাদিক শফিকুল ইসলাম কাজলের বিরুদ্ধে চার্জশীট দাখিল ও তা আদালত কর্তৃক গ্রহনের খবরে গভীর উদ্বেগ ও উৎকন্ঠা প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে)।

শুক্রবার (১০ সেপ্টেম্বর) গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে বিএফইউজে সভাপতি এম আবদুল্লাহ ও মহাসচিব নুরুল আমিন রোকন কাজলের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত হয়রানিমূলক মামলার রাজনৈতিক প্রভাবমুক্ত নিরপেক্ষ পুন:তদন্ত দাবি করেছেন।

নেতৃদ্বয় একটি মামলায় দৈনিক মানবজমিন সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরীসহ ৩০ জনকে চার্জশীটে খালাস দেওয়ায় সন্তোষ প্রকাশ করেছেন।

বিবৃতিতে বিএফইউজে নেতৃদ্বয় ক্ষোভ ও হতাশা ব্যক্ত করে বলেন, মাগুরা-১ আসনের সরকার দলীয় এমপি সাইফুজ্জমান শেখর রাজধানীর শেরে বাংলা নগর থানায় ডিজিটাল আইনে মামলা দায়েরের পর কাজলকে তুলে নিয়ে ৫৪ দিন গুম করে রাখা হয়। দেশ-বিদেশে তীব্র ক্ষোভ ও চাপের মুখে গত ৩ মে বেনাপোল সীমান্ত থেকে তাঁকে আটক দেখানো হয়। তার পর শুরু হয় নতুন করে নিপীড়ন। সংসদ সদস্যের মামলায় ফটোসাংবাদিক শফিকুল ইসলাম কাজলের বিরুদ্ধে প্রথম চার্জশীট দাখিল করা হয়। পরে একই ঘটনায় হাজারীবাগ ও কামরাঙির চর থানায় সরকার দলীয় নেতাদের দায়ের করা আরও দুটি মামলায় তার বিরুদ্ধে চার্জশীট দাখিল করা হয়েছে। এতে স্পষ্টভাবে প্রতীয়মান হচ্ছে যে, কাজল ক্ষমতাধর এমপি’র রোষানলে পড়েছেন। পুলিশ প্রভাবমুক্তভাবে তদন্ত করতে পারলে একটি সংবাদ শেয়ার করার কারণে তিনটি মামলায় চার্জশীট হওয়ার কথা নয়।

বিএফইউজে নেতৃদ্বয় অবিলম্বে দাখিলকৃত চার্জশীট প্রত্যাহার করে নিরপেক্ষ ও প্রভাবমুক্ত তদন্তের মাধ্যমে ফটোসাংবাদিক কাজলকে ভিত্তিহীন অভিযোগ থেকে মুক্তি দেওয়ার দাবি জানান।

প্রবীর শিকদারের খালাসে সন্তোষ
ছয় বছর আগে সাবেক এলজিআরডি মন্ত্রী খোন্দকার মোশাররফ হোসেনসহ তিনজনকে জড়িয়ে ফেসবুকে পোস্ট দেওয়ার অভিযোগে ফরিদপুরের কোতয়ালী থানায় তথ্য প্রযুক্তি আইনের বিতর্কিত ৫৭ ধারায় সাংবাদিক প্রবীর শিকদারের বিরুদ্ধে যে মামলা করা হয়েছিল তা খারিজ করে তাঁকে খালাস দেওয়ায় সন্তোষ প্রকাশ করেছেন বিএফইউজে নেতৃদ্বয়।

বিবৃতিতে তাঁরা বলেন, প্রবীর শিকদারকে গ্রেফতার ও হয়রানির ঘটনার সময় প্রতিবাদ কর্মসূচিতে আমরা বলেছিলাম, মামলার অভিযোগ ভিত্তিহীন এবং ¯্রফে হয়রানির উদ্দেশ্যেই মামলাটি করা হয়েছে। এখন তা প্রমানিত হয়েছে। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

এমবি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *