বুধবার ২৫, মে ২০২২
EN

বেনাপোলে ১৭ মে থেকে পণ্য পরিবহন অনির্দিষ্টকাল বন্ধের ঘোষণা

এ বন্দরে প্রায় সবগুলো ক্রেন ও ফরক্লিপ অকেজো হয়ে গেছে। যে ক্রেন ও ফরক্লিপ একটু ভালো আছে সেগুলোও বার বার নষ্ট হয়ে যায়। এ কারণে তাদের প্রতিদিন বাড়তি ট্রাকভাড়া দিতে হচ্ছে। এতে করে লোকসানের মুখে পড়ছেন তারা।

দেশের বৃহত্তম স্থলবন্দর বেনাপোল ১৭ মে থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য পণ্য পরিবহন বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে বেনাপোল ট্রান্সপোর্ট এজেন্সি মালিক সমিতি।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সমিতির সাধারণ সম্পাদক আজিম উদ্দিন গাজী।

তিনি জানিয়েছেন, বেনাপোল বন্দরে ভারী পণ্য উঠানো কিংবা নামানোর জন্য পর্যাপ্ত ক্রেন ও ফরক্লিপ নেই। যেগুলো আছে তার মধ্যে বেশিরভাগ নষ্ট থাকে। পাশাপাশি ক্রেন ও ফরক্লিপ চালকরা যথেষ্ট দক্ষ না। এ কারণে বন্দরে আমদানিকৃত ভারী পণ্য খালাস করতে দীর্ঘ সময় লেগে যাচ্ছে। এতে ব্যবসায়ীরা মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছেন বেনাপোল বন্দর থেকে।

তিনি বলেন, এ বিষয়ে বেনাপোল স্থলবন্দরের উপপরিচালক (ট্রাফিক) মামুন কবির তরফদারকে চিঠি দিলেও তিনি আমলে নেননি। এসব সমস্যা সমাধানের লক্ষ্যে আগামী ১৭ মে থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য পণ্য পরিবহন বন্ধের ঘোষণা দেয়া হয়েছে।

বেনাপোল বন্দর ব্যবহারকারী ব্যবসায়ী কামাল হোসেন জানান, এ বন্দরে প্রায় সবগুলো ক্রেন ও ফরক্লিপ অকেজো হয়ে গেছে। যে ক্রেন ও ফরক্লিপ একটু ভালো আছে সেগুলোও বার বার নষ্ট হয়ে যায়। এ কারণে তাদের প্রতিদিন বাড়তি ট্রাকভাড়া দিতে হচ্ছে। এতে করে লোকসানের মুখে পড়ছেন তারা।

বেনাপোল বন্দরে ক্রেন ও ফরক্লিপ সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান ব্ল্যাক বেঙ্গল এন্টারপ্রাইজের ম্যানেজার মিল্টন হোসেন জানান, বন্দর দিয়ে বর্তমানে অধিক পরিমাণ পিডিপির (বিদ্যুৎ টাওয়ারের মালামাল) অ্যাঙ্গেল আমদানি হচ্ছে। আমদানিকৃত টিটিবি অ্যাঙ্গেল উঠাতে ও নামাতে গিয়ে তাদের বেশকিছু ক্রেন ও ফরক্লিপের যন্ত্রপাতি নষ্ট হয়েছে। ফলে পণ্য উঠা-নামা করতে সমস্যা হচ্ছে। বেনাপোলে তাদের ছয়টি ক্রেনের মধ্যে তিনটি সচল রয়েছে। এছাড়া, ১০টি ফরক্লিপের মধ্যে আটটি সচল আছে।

অল্প সময়ের মধ্যে আরো দুটি ক্রেন আনা হবে বলে জানান মিল্টন।

এবিএস

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *