মঙ্গলবার ৯, অগাস্ট ২০২২
EN

মাঙ্কিপক্স : যুক্তরাষ্ট্রে জরুরি অবস্থা ঘোষণা

মাঙ্কিপক্সের প্রাদুর্ভাবে জনস্বাস্থ্য জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছে মার্কিন সরকার। এই সিদ্ধান্ত ভাইরাসের বিস্তার রোধে ভ্যাকসিন, চিকিৎসা এবং প্রয়োজনীয় পণ্য বিতরণকে ত্বরান্বিত করবে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) বিশ্বব্যাপী আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধির পরিপ্রেক্ষিতে সর্বোচ্চ জরুরি সতর্কতা জারি করার দুই সপ্তাহেরও কম সময়ের মধ্যে এমন সিদ্ধান্ত নিল যুক্তরাষ্ট্র।

স্বাস্থ্য কর্মকর্তাদের তথ্যমতে, যুক্তরাষ্ট্রে মাঙ্কিপক্সে আক্রান্তের সংখ্যা ছয় হাজার ৬০০ ছাড়িয়েছে।

দেশটিতে মাঙ্কিপক্সে আক্রান্ত এক চতুর্থাংশ নিউইয়র্কে। গত সপ্তাহে এই রোগের জন্য স্থানীয়ভাবে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছে রাজ্যটি।

এরপরেই সর্বোচ্চ আক্রান্ত দুটি রাজ্য - ক্যালিফোর্নিয়া ও ইলিনয়-এই সপ্তাহের শুরুতে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের রোগনিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ কেন্দ্রের (সিডিসি) তথ্য অনুযায়ী, এ বছর বিশ্বব্যাপী ২৬ হাজারেরও বেশি মানুষ মাঙ্কিপক্সে আক্রান্ত হয়েছেন বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে।

কিছু জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ উদ্বেগ প্রকাশ করে বলছেন, জরুরি অবস্থা ঘোষণার এই সিদ্ধান্ত রোগটিকে আরও বাড়াতে পারে। যদিও যে কেউ মাঙ্কিপক্সে আক্রান্ত হতে পারে। তবে প্রাদুর্ভাবটি মূলত পুরুষদের সঙ্গে যৌন মিলনকারী পুরুষদের মধ্যে বেশি দেখা দিয়েছে। এটি সম্পূর্ণরূপে যৌন সংক্রমক (এসটিআই) নয় এবং আক্রান্ত ব্যক্তির সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সংস্পর্শের মাধ্যমেও এটি ছড়াতে পারে।

ভাইরাসটি সাধারণত ফুসকুড়ি সৃষ্টি করে, যাতে অত্যন্ত চুলকানি ও ব্যথা হতে পারে। এটি সারা শরীরে ছড়িয়ে পড়তে পারে। সেই সাথে অন্যান্য জটিলতাও হতে পারে।

প্রাপ্তবয়স্ক রোগীদের ক্ষেত্রে চিকিৎসা বা হাসপাতালে ভর্তি হওয়া ছাড়াই লক্ষণগুলো সাধারণত হালকা এবং মুছে যেতে পারে। কিন্তু ডব্লিউএইচও সতর্ক করে বলেছে, ছোট শিশুরা এই রোগে বেশি হারে মারা গেছে।

যুক্তরাষ্ট্র এবং অন্যান্য দেশের কর্মকর্তারা বলেছেন, সর্বোচ্চ ঝুঁকিতে থাকা সমকামী এবং উভকামী পুরুষদের পাশাপাশি কিছু স্বাস্থ্যসেবা কর্মীদেরকে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে টিকা নেওয়া উচিত।

সূত্র : বিবিসি

এমআর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *