মঙ্গলবার ১৬, অগাস্ট ২০২২
EN

‘মাঝ আকাশে সংঘর্ষ এড়াল দুই বিমান’

শ্রীলঙ্কার একটি রাষ্ট্রীয় উড়োজাহাজ তুরস্কের আকাশসীমায় ব্রিটিশ এয়ারওয়েজের একটি উড়োজাহাজের সঙ্গে মাঝ আকাশে সংঘর্ষ এড়াতে সক্ষম হয়েছে।

লন্ডন থেকে কলম্বো পর্যন্ত সোমবারের ফ্লাইটটি দুর্ঘটনা এড়িয়ে নিরাপদে পরিচালনা করতে পারায় বুধবার পাইলটদের প্রশংসা করেছে শ্রীলঙ্কান এয়ারলাইন্স।

রাষ্ট্রীয় উড়োজাহাজ সংস্থাটি জানায়, ১৩ জুন পাইলটদের সতর্কতায় এবং বিমানটিতে অত্যাধুনিক যোগাযোগ ও নজরদারি ব্যবস্থা থাকায় ইউএল-৫০৪ উড়োজাহাজটি নিরাপদে অবতরণ করতে সক্ষম হয়েছে।

এক বিবৃতিতে বলা হয়, শ্রীলঙ্কান এয়ারলাইন্স ইউএল-৫০৪ পরিচালনাকারী পাইলটদের সময়োপযোগী পদক্ষেপের প্রশংসা করে। তাদের দক্ষতায় ইউএল-৫০৪ এ থাকা সব যাত্রী, ক্রু এবং সরঞ্জামের নিরাপত্তা নিশ্চিত হয়েছে।

লন্ডন থেকে কলম্বোগামী ইউএল-৫০৪ তুর্কি আকাশসীমায় থাকাকালে মাঝ আকাশে সম্ভাব্য সবচেয়ে বড় সংঘর্ষ এড়ানোর বিষয়ে গণমাধ্যমে প্রতিবেদন প্রকাশ করার পর বিষয়টি স্পষ্ট করল কর্তৃপক্ষ।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ফ্লাইটটি ২৭৫ জন যাত্রী নিয়ে হিথ্রো বিমানবন্দর থেকে কলম্বো যাওয়ার পথে তুরস্কের আকাশসীমায় প্রবেশ করেছিল।

এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলরুম (এটিসি) থেকে ৩৩ হাজার ফুট উচ্চতায় থাকা শ্রীলঙ্কার ফ্লাইটটিকে বলা হয়েছিল ৩৫ হাজার ফুট উপরে উঠতে।

ঠিক তখনই শ্রীলঙ্কার ফ্লাইটটি ১৫ মাইল দূরে ৩৫ হাজার ফুট উপর দিয়ে বিপরীত দিক থেকে আসা ব্রিটিশ এয়ারওয়েজের ফ্লাইটটি শনাক্ত করে, যেটিতে ২৫০ জনেরও বেশি যাত্রী ছিল। তাৎক্ষণিকভাবে পাইলটরা বিষয়টি আঙ্কারায় এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলকে অবহিত করে।

আঙ্কারা এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোল থেকে দুইবার ভুল বার্তা দেওয়া সত্ত্বেও শ্রীলঙ্কার পাইলটরা একই উচ্চতায় (৩৫০০০ ফুট উপরে) আরোহণ করতে অস্বীকার করেন।

মিনিট খানেকের মধ্যেই এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোল থেকে জরুরি বার্তা পাঠানো হয়, শ্রীলঙ্কার ফ্লাইটটিকে ৩৫ হাজার ফুটে আরোহণ না করতে। কারণ ইতোমধ্যে একই উচ্চতায় ব্রিটিশ এয়ারওয়েজের দুবাইগামী একটি ফ্লাইট বিপরীত দিক থেকে আসছে।

শ্রীলঙ্কার বন্দরনায়েকে আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণের পর সব যাত্রী ও ক্রু ফ্লাইট থেকে নিরাপদে নেমে আসেন এবং ঘটনার একটি প্রতিবেদন দাখিল করা হয়েছে। তথ্যসূত্র : পিটিআই, এনডিটিভি।

এবিএস

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *