রবিবার ২৩, জানুয়ারী ২০২২
EN

মির্জাপুরে খান আহমেদ শুভতেই আস্থা রাখলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

টাঙ্গাইল-৭ (মির্জাপুর) মো. একাব্বর হোসেনের মৃত্যুতে শূন্য হওয়া আসনে উপ-নির্বাচনে নৌকা প্রতীক পেয়েছেন খান আহমেদ শুভ।

টাঙ্গাইল-৭ (মির্জাপুর) মো. একাব্বর হোসেনের মৃত্যুতে শূন্য হওয়া আসনে উপ-নির্বাচনে নৌকা প্রতীক পেয়েছেন খান আহমেদ শুভ।

খান আহমেদ শুভ.jpg

তিনি এফবিসিসিআইয়ের পরিচালক টাঙ্গাইল জেলা চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ড্রাটিজ লিমিটেডের সভাপতি জেলা আওয়ামী লীগের কার্যকরী সদস্য ও টাঙ্গাইল থেকে প্রকাশিত আজকের দেশবাসী পত্রিকার নির্বাহী সম্পাদক।

Fazlur_Rahman_Khan_and_Khan_Ahmed_Shuvo_jpg.jpg

খান আহমেদ শুভ টাঙ্গাইল জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সাবেক সাংসদ ফজলুর রহমান খানের ছেলে।

গতকাল শুক্রবার (৩ ডিসেম্বর) প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে আওয়ামী লীগের সংসদীয় মনোনয়ন বোর্ড ও স্থানীয় সরকার জনপ্রতিনিধি মনোনয়ন বোর্ডের সভায় প্রার্থী চূড়ান্ত করা হয়।

শেখ হাসিনা১.jpg

সভায় সভাপতিত্ব করেন আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনা। উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মীর এনায়েত মন্টু রাত ১০টার দিকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। 

খান আহমেদ শুভ.jpg

এদিকে খান আহমেদ শুভর মনোনয়ন নিশ্চিত হওয়ার খবর মির্জাপুরে ছড়িয়ে পড়লে রাত ৯টার দিকে উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক আমিনুর রহমান আকন্দ ও উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো. শরিফুল ইসলামের নেতৃত্বে উপজেলা সদরে মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

এছাড়া উপজেলার পাকুল্যা, কুরণী, ভাওড়া, গোড়াই, ওয়ার্শী, বাঁশতৈল, মহেড়াসহ বিভিন্ন স্থানে আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা আনন্দ মিছিল বের করে। 

উল্লেখ্য, গত ১ ডিসেম্বর ( বুধবার) নৌকার টিকিট পেতে প্রয়াত এমপির স্ত্রী-পুত্রসহ ৯ জন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। উৎসব মুখর পরিবেশে তারা দলীয় কার্যালয়ে এই মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

মির্জাপুর jpg

যারা মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন তারা হলেন-

মীর শরীফ মাহমুদ,

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক ভিপি

মেজর (অব.) খন্দকার এ হাফিজ,

টাঙ্গাইল জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও বঙ্গবন্ধু সেনা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক

খান আহমেদ শুভ,

টাঙ্গাইল জেলা আওয়ামী লীগের কার্যকরী সদস্য ও এফবিসিসিআইয়ের পরিচালক

সৈয়দ ওয়াহিদ ইকবাল,

মির্জাপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক

মো. রাফিউর রহমান খান ইউসুফজাই সানি,

ইবিএস গ্রুপের পরিচালক ও মধুমতি ব্যাংকের পরিচালক

ব্যারিস্টার মো. তাহরীম হোসেন সীমান্ত,

প্রয়াত এমপি বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. একাব্বর হোসেনের ছেলে ও ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহসম্পাদক

ঝরনা হোসেন,

প্রয়াত এমপি একাব্বর হোসেনের সহধর্মীনি ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য

মো. তৌফিকুর রহমান তালুকদার রাজিব, এবং

সাংগঠনিক সম্পাদক

খন্দকার বিপ্লব মাহমুদ উজ্জ্বল।

জাতীয় পল্লী উন্নয়ন সমবায় ফেডারেশনের চেয়ারম্যান ও উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ।

একাব্বর.jpg

উল্লেখ্য, গত ১৬ নভেম্বর টাঙ্গাইল-৭ মির্জাপুর আসনের ৪ বারের সংসদ সদস্য এবং সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. একাব্বর হোসেন অসুস্থ জনিত কারণে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে মারা যান। তার মৃত্যুতে আসনটি শূন্য হয়।

গত ৩০ নভেম্বর নির্বাচন কমিশনের সচিব মো. হুমায়ুন কবীর খোন্দকার টাঙ্গাইল-৭ আসনের উপনির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেন।

তফসিল অনুযায়ী আগামী ১৫ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ তারিখ, ২০ ডিসেম্বর বাছাই, ২৭ ডিসেম্বর প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন এবং ১৬ জানুয়ারি ভোট গ্রহণ। ভোট হবে ইভিএম পদ্ধতিতে।

মীর সিয়াম/এইচএন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *