শনিবার ২৯, জানুয়ারী ২০২২
EN

যুক্তরাষ্ট্রের উদ্দেশে দেশ ছাড়া ৯ হাজার আফগান জার্মানিতে বিপদে

হাম ছড়িয়ে পড়তে পারে এই আশঙ্কায় ৯ হাজার আফগানকে জার্মানির সেনা ঘাঁটিতে থাকতে বাধ্য করছে যুক্তরাষ্ট্র। আরো ৫৭ জন আফগান বিমানে উঠতে গিয়ে বাধা পেয়েছেন।

হাম ছড়িয়ে পড়তে পারে এই আশঙ্কায় ৯ হাজার আফগানকে জার্মানির সেনা ঘাঁটিতে থাকতে বাধ্য করছে যুক্তরাষ্ট্র। আরো ৫৭ জন আফগান বিমানে উঠতে গিয়ে বাধা পেয়েছেন। ব্রিটেনের অভিযোগ- তাদের কাছে দরকারি কাগজপত্র নেই।

গত ২০ বছর যুক্তরাষ্ট্রসহ পাশ্চাত্যের অন্যান্য দেশের সেনাদের নানাভাবে সহায়তা করেছেন তারা। তালেবান আফগানিস্তানের নিয়ন্ত্রণ নেয়ায় নিজের দেশে তাদের জীবন বিপন্ন হতে পারে এমন আশঙ্কায় নিরাপদ জীবনের আশায় কাবুল থেকে বিমানে উঠেছিলেন তারা। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্রের উদ্দেশে রওয়ানা হলেও ৯ হাজার আফগান এখন জার্মানির রামস্টাইন বিমান ঘাঁটিতে।

শুক্রবার হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র জেন পিসাকি জানান, আফগানিস্তান থেকে যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়া চারজনের দেহে হাম পাওয়া গেছে। ইতিমধ্যে কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে তাদের। অন্য আফগানদের মাধ্যমেও যাতে যুক্তরাষ্ট্রে হাম ছড়িয়ে পড়তে না পারে সেজন্য আগে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করিয়ে সবাইকে হামের টিকাও দেয়াতে চায় কর্তৃপক্ষ। তাই রামস্টাইন বিমান ঘাঁটিতে ৯ হাজার আফগানকে আপাতত রেখে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল।

জেন পিসাকি আরো জানান, এমনিতে ওই ৯ হাজার আফগানের সর্বোচ্চ ১০ দিন রামস্টাইন বিমান ঘাঁটিতে থাকার কথা, তবে সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল চাইছে, প্রত্যেকে জার্মানি থেকে স্বাস্থ্য পরীক্ষা এবং টিকা নেয়া সেরেই যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ করুক।

ফ্রাঙ্কফুর্টে আরো ৫৭ জন
জার্মানির ভেল্ট আম জনটাগের খবর অনুযায়ী, ফ্রাঙ্কফুর্টে বিমানে ওঠার আগে বাধা পেয়েছেন তালেবানের হাত থেকে বাঁচতে দেশ ছাড়া ৫৭ জন আফগান। উজবেকিস্তান হয়ে জার্মানিতে এসেছেন তারা ব্রিটেনে যাওয়ার আশায়। কিন্তু বিমানবন্দরে যাওয়ার পর ব্রিটিশ কর্তৃপক্ষ জানায়, প্রয়োজনীয় কাগজপত্র না থাকায় তাদের বিমানে উঠতে দেয়া যাবে না।

জার্মানির হেসে রাজ্যের সামাজিক সম্পর্ক মন্ত্রণালয়ের এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, মানবিক কারণে ওই ৫৭ জন আফগানকে আপাতত ফ্রাঙ্কফুর্টের কাছের গিসেন শহরে নিয়ে রাখা হয়েছে। তথ্যসূত্র : ডয়চে ভেলে।

এবিএস

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *