বুধবার ১, ফেব্রুয়ারি ২০২৩
EN

যুক্তরাষ্ট্রে আবারও বন্দুক হামলা, নিহত অন্তত ৯

যুক্তরাষ্ট্রে পৃথক তিনটি বন্দুক হামলার ঘটনায় দুই শিক্ষার্থীসহ ৯ জন নিহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা এএফপি।

আজ মঙ্গলবার (২৪ জানুয়ারি) গণমাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়, লস অ্যাঞ্জেলেসে চীনা নববর্ষের অনুষ্ঠানে বন্দুক হামলায় ১১ জন নিহত হওয়ার ৪৮ ঘণ্টারও কম সময়ের মধ্যে উত্তর ক্যালিফোর্নিয়া এবং আইওয়াতে বন্দুকধারীর গুলিতে এই প্রাণহানি ঘটল।

সান ফ্রান্সিসকোর দক্ষিণে উত্তর ক্যালিফোর্নিয়ার হাফ মুন বে’র খামারে দুটি বন্দুক হামলার খবর পাওয়া গেছে। এতে সাত জন নিহত এবং তিন জন গুরুতর আহত হয়েছে।

শেরিফ অফিস টুইট করে জানায়, নিহতের সংখ্যা আনুষ্ঠানিকভাবে নিশ্চিত করা সম্ভব হয়নি। তবে সান মাটেও'র কাউন্টি শেরিফ টুইট করে জানান, তারা একটি হামলার ঘটনায় সন্দেহভাজন একজনকে হেফাজতে নিয়েছে। বর্তমানে ওই এলাকায় কোনো হুমকি নেই।

আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সূত্রের বরাত দিয়ে সংবাদমাধ্যম এবিসি৭ জানায়, মাশরুম খামারে একজন নিহত এবং তিনজন আহত হয়েছে।

সংবাদমাধ্যমটি তাদের ওয়েবসাইটে জানায়, এ ছাড়া কাছের আরেকটি খামারে তিনজন মারা গেছে। পরে তারা পরিসংখ্যান হালনাগাদ করে এবং দুটি বন্দুক হামলায় সাতজন নিহত হয়েছে বলে জানায়।

শনিবারের বন্দুক হামলার কারণে মন্টেরি পার্কে ছিলেন ক্যালিফোর্নিয়ার গভর্নর গ্যাভিন নিউজম। নতুন করে হামলার খবর ছড়িয়ে পড়ার পর তিনি টুইটারে বলেন, একটি বন্দুক সহিংসতার ঘটনায় যখন হাসপাতালে বৈঠকে ছিলাম, তখন আমাকে আরেকটি হামলা সম্পর্কে ব্রিফ করতে নিয়ে যাওয়া হয়। এবার ঘটেছে হাফ মুন বে-তে। ট্র্যাজেডির ওপর ট্র্যাজেডি।

আইওয়াতে স্টার্টস রাইট হিয়ার নামে একটি প্রতিষ্ঠানে আরেকটি বন্দুক হামলার খবর পাওয়া গেছে। প্রতিষ্ঠানটি ঝুঁকিপূর্ণ যুবকদের জন্য শিক্ষামূলক পরামর্শদান কর্মসূচি পরিচালনা করে। এতে দুই শিক্ষার্থী নিহত ও তিনজন আহত হয়, যাদের মধ্যে দুজনের অবস্থা গুরুতর।

ডেস মইনেস পুলিশ বিভাগের একজন মুখপাত্রের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা এএফপি জানায়, নিহত দুইজনই ছাত্র। তারা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছে। এ ঘটনায় প্রতিষ্ঠানটির আরও একজন কর্মচারী চিকিৎসাধীন, তার অবস্থা আশঙ্কাজনক।

গান ভায়োলেন্স আর্কাইভ ওয়েবসাইটের তথ্য অনুযায়ী, গত বছর গণহারে গুলি চালানোর ৬৪৭টি ঘটনা ঘটেছে, যেখানে একজন বন্দুকধারীর গুলিতে অন্তত চারজন আহত বা নিহত হয়েছে।

২০২২ সালে যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে ৪৪ হাজারেরও বেশি মানুষ গুলিতে নিহত হয়েছে, যার মধ্যে অর্ধেকেরও বেশি ছিল আত্মহত্যা।

এবিএস

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *