রবিবার ২৩, জানুয়ারী ২০২২
EN

রাবির অধ্যাপক ড. ফারুক হোসাইন আর নেই

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) সমাজকর্ম বিভাগের জনপ্রিয় অধ্যাপক ড. ফারুক হোসাইন আর নেই। (ইন্না-লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। তিনি ক্যান্সারে ভুগছিলেন।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) সমাজকর্ম বিভাগের জনপ্রিয় অধ্যাপক ড. ফারুক হোসাইন আর নেই। (ইন্না-লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। তিনি ক্যান্সারে ভুগছিলেন।

আজ সোমবার ( ২৭ ডিসেম্বর) ভোর ৫টা ৪৫ মিনিটে মুম্বাইয়ের টাটা মেমোরিয়াল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেছেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেন সমাজকর্ম বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. কে এম রবিউল করিম।

তিনি দৈনিক নয়া দিগন্তের চিফ রিপোর্টার সাংবাদিক হারুন জামিলের ছোট ভাই। দীর্ঘদিন ফুসফুস ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছিলেন অধ্যাপক ফারুক। তার এই অকাল মৃত্যুতে বিভাগজুড়ে চলছে শোকের মাতম।

জানা গেছে, ভারতের টাটা মেমোরিয়াল হাসপাতালে ২৬ জুলাই ভর্তি হন। এরপর গত তিন-চার মাস পূর্বে চেকআপ করতে গিয়ে দেখেন তার ওষুধগুলো ঠিকমতো কাজ করছে না।

তারপর হাসাপাতালে রেখে কেমো দেয়া হয়। কিছুটা শারীরিক অবস্থার উন্নতি হলেও গত কয়েক দিন আগে স্বাস্থ্যের অবনতি হয়ে ফের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তাকে অক্সিজেন সাপোর্টে রাখা হয়েছিল। কিন্তু ভোর পৌনে ৫টায় তিনি ইন্তেকাল করেছেন।

তার এই অকাল মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করে বিভাগে শিক্ষক অধ্যাপক ড. মো: রবিউল ইসলাম বলেন, অধ্যাপক ফারুক ছিলেন শিক্ষার্থীবান্ধব এবং বিভাগের জনপ্রিয় শিক্ষক।

অত্যন্ত মেধাবী ও একজন ভালো মানের গবেষকও ছিলেন তিনি। তার মতো একজন শিক্ষক বর্তমান সময়ে পাওয়া খুব কঠিন। তিনি শিক্ষার্থীদের মনের ভাষা খুব সহজেই বুঝতে পারতেন। যার ফলে বিভাগের প্রতিটি শিক্ষার্থীর অন্তরে তিনি আলাদা একটা জায়গায় করে নিয়েছিলেন।

তার অনুপস্থিতি সমাজকর্ম পরিবারের জন্য হতাশাজনক ও অত্যন্ত বেদনাদায়ক। তার ইন্তেকালে শুধু সমাজকর্মের নয় পুরো বিশ্ববিদ্যালয়ের এক অপূরণীয় ক্ষতি হলো বলে জানান তিনি।

এদিকে শোক প্রকাশ করে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রোভিসি অধ্যাপক ড. সুলতান-উল-ইসলাম বলেন, অধ্যাপক ফারুক দীর্ঘদিন থেকেই ক্যান্সারে ভুগছিলেন।

তবে তার এই বিদায় আমাদের খুবই মর্মাহত করে। তাকে মুম্বাই থেকে দেশে আনার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন সব ধরনের সহযোগিতা করবে।

এইচএন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *