শুক্রবার ৩, ডিসেম্বর ২০২১
EN

রাসূল্লাহর (সা:) অনুসরণের মাঝেই সকল সাফল্য নিহিত রয়েছে: আব্দুর রউফ

পবিত্র সিরাতুন্নবী (স:) উপলক্ষে জাতীয় রচনা প্রতিযোগীতার পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠান ২০২০ অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার (০৬ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে রাজধানীর কাঁটাবন মসজিদ কমপ্লেক্সে জাতীয় সিরাত উৎযাপন কমিটির উদ্যোগে এই পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠান হয়।

পবিত্র সিরাতুন্নবী (স:) উপলক্ষে জাতীয় রচনা প্রতিযোগীতার পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠান ২০২০ অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার (০৬ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে রাজধানীর কাঁটাবন মসজিদ কমপ্লেক্সে জাতীয় সিরাত উৎযাপন কমিটির উদ্যোগে এই পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠান হয়।

এসময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিচারপতি আব্দুর রউফ বলেছেন, প্রিয় নবী হযরত মুহাম্মদ (সা:) জীবনচরিতকে চর্চার মাধ্যমে আরও বেশি পরিমাণ অনুস্মরণ করতে হবে এবং তাঁর সেই আদর্শ ব্যক্তিজীবনে বাস্তবায়নের মাধ্যমে নিজেদেরকে প্রকৃত মুসলিম হিসেবে উপস্থাপন করতে হবে।

মাওলানা আবু তাহের জিহাদী'র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- বাংলাদেশ ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্টি বোর্ডের সম্মানিত চেয়্যারম্যান, বিশিষ্ট আলেমে দ্বীন সাইয়েদ মাওলানা মো: কামাল উদ্দিন জাফরী। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি অনুষদের সাবেক ডীন ও মানারাত ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির সাবেক ভাইস চ্যান্সেলর ডক্টর চৌধুরী মাহমুদ হাসান।

আরও বক্তব্য প্রদান করেন মসজিদ মিশন এর সেক্রেটারি জেনারেল ও জাতীয় সিরাতুন্নবী সা: উৎযাপন কমিটির সদস্য সচিব মাওলানা ড. খলিলুর রহমান মাদানী, সম্মিলিত ইসলামী দলসমুহের মহাসচিব মাওলানা জাফরুল্লাহ খান, ফুরফুরা দরবার শরীফের খলিফা মাওলানা আব্দুল কাইউম, খেলাফত আন্দোলন বাংলাদেশের নায়েবে আমীর মাওলানা মুজিবুর রহমান হামিদী, বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের ভারপ্রাপ্ত খতিব মাওলানা এহসান উল হক, শর্ষীনা দরবার শরিফের ছোট পীর মাওলানা শাহ আরিফ বিল্লাহ সিদ্দিকী, মুফতি ফকরুল ইসলাম, জাতীয় ইমাম সমিতির সভাপতি মাওলানা লুৎফর রহমান, অধ্যক্ষ মুফতি মিজানুর রহমান প্রমুখ সহ দেশের শীর্ষস্থানীয় ওলামায়ে কেরামগণ।

বাংলাদেশ সরকারের সাবেক প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও সাবেক বিচারপতি আব্দুর রউফ তার বক্তব্যে বলেন, সিরাতুন্নবী (সা:) এর আলোচনায় রাসুল (সা:) এর জন্ম থেকে শুরু করে পুরো জীবনচরিত আলোচনা করা হয়। যার গুরুত্ব ও শিক্ষা প্রতি মুসলামানের জন্য অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। রাসূলের (সা:) অনুসরণ ব্যতীত ইহকাল ও পরকালে নাযাত পাওয়া সম্ভব নয়। রাসূল্লাহর (সা:) অনুসরণের মাঝেই সকল প্রকার সাফল্য নিহিত রয়েছে। রাসূল (সা:) এমন একজন আদর্শিক মানুষ ছিলেন, যিনি শুধুমাত্র মুসলমানদের নিকটই নয়, একজন বিশ্বস্ত মানুষ হিসেবে ভিন্ন ধর্মাবলম্বীরাও তার প্রশংসায় পঞ্চমুখ থাকতো। কাফির, মুশরিক এমনকি জানের দুশমনরাও যার সত্যবাদির জন্য তাকে ‘আল আমিন’(বিশ্বস্ত) বলে ডাকতো।

সাইয়েদ মাওলানা মো: কামাল উদ্দিন জাফরী বলেন, মানুষের জন্য উত্তম আদর্শ হিসেবে মহান আল্লাহ তায়ালা মুহাম্মদ (সা:) কে সার্টিফিকেট দিয়েছেন। মানবতার দোহাই দিয়ে পৃথিবীতে যারা অশান্তি সৃষ্টি করছে, তাদের বিরুদ্ধে জবাব দিতে পারে তারাই যারা ইসলামী খেলাফত প্রতিষ্ঠা করতে চায়, যারা একমাত্র মুহাম্মদ (স:) কে নেতা মেনে তার আদর্শ লালন করে ও বাস্তবায়ন করতে চায়। সুতরাং সকল ক্ষেত্রে নবী মুহাম্মদ (সা:) কে গ্রহণ করতে হবে।

ফুরফুরা দরবার শরীফের খলিফা শায়খ আব্দুল কাইয়ুম বলেন, প্রতিটি মুসলমানের আখেরাতের বিষয়ে সচেতন থাকতে হবে। রাসুল (স:) এর আদর্শ অনুস্মরণের মাধ্যমে নিজেকে জান্নাতি মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে হবে।

অনুষ্ঠানে সিরাতুন্নবী (স:) উপলক্ষে আয়োজিত রচনা প্রতিযোগীতায় ৩টি গ্রুপে বিজয়ী ৩০ জনকে নগদ অর্থ, ক্রেস্ট সহ আকর্ষিণীয় বইয়ের সেট পুরস্কার প্রদান করা হয়।প্রেস বিজ্ঞপ্তি

এমবি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *