মঙ্গলবার ৭, ডিসেম্বর ২০২১
EN

‘সত্যের জয়’, জামিন পেয়ে হুঙ্কার সায়নির

শর্তসাপেক্ষে ত্রিপুরার আদালতে জামিন পেলেন সায়নি ঘোষ। তবে তদন্তের স্বার্থে যখনই ডাকা হবে যুব তৃণমূল নেত্রীকে তখনই থানায় হাজিরা দিতে হবে বলে জানান আদালত।

শর্তসাপেক্ষে ত্রিপুরার আদালতে জামিন পেলেন সায়নি ঘোষ। তবে তদন্তের স্বার্থে যখনই ডাকা হবে যুব তৃণমূল নেত্রীকে তখনই থানায় হাজিরা দিতে হবে বলে জানান আদালত। তবে আদালতে সায়নিকে নিরাপত্তা দেয়ার আরজি জানিয়েছে তৃণমূল নেতৃত্ব।

সায়নির বিরুদ্ধে খুনের চেষ্টাসহ একাধিক অভিযোগ করেছিল বিজেপি। সেই অভিযোগের প্রেক্ষিতে তাকে জেরা করতে হোটেলে হানা দেয় পুলিশ। পরে তাকে থানায় ডেকে পাঠানো হয়। সেখানে দীর্ঘ জিজ্ঞাসাবাদের পর সায়নিকে গ্রেফতার করে পূর্ব আগরতলা মহিলা থানার পুলিশ। এদিন তাকে আদালতে পেশ করে পুলিশ। দু’পক্ষের সওয়াল জবাবের পর ২০ হাজার টাকার ব্যক্তিগত বন্ডে জামিন পান সায়নি ঘোষ। তবে তদন্তে সহযোগিতা করতে হবে তাকে।

সায়নির জামিনের পর তৃণমূলের রাজ্য সম্পাদক তথা মুখপাত্র কুণাল ঘোষ জানান, রাজনৈতিক প্রতিহিংসার জেরেই সায়নিকে গ্রেফতার করা হয়েছিল। অভিযোগ প্রমাণ না হওয়ায় জামিন পেলেন সায়নি। এটা ‘সত্যের জয় হলো’ বলে মত সায়নির।

রোববার সায়নিকে জিজ্ঞাসাবাদের সময় থানায় একাধিকবার হামলা হয় বলে অভিযোগ তৃণমূলের। তাই এদিন সায়নির জন্য বিশেষ নিরাপত্তার ব্যবস্থা করার আরজি জানিয়েছে তৃণমূল। জামিনের পর সায়নির অভিযোগ, রোববার রাতে থানায় হামলা হয়েছিল। আমাকে নিরাপত্তা দেয়ার জন্য পুলিশ অন্য থানায় সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়।’

ঘটনার সূত্রপাত শনিবার রাতে। অভিযোগ, ভোটের প্রচার সেরে ফেরার পথে চৌমুহনীতে মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবের সভার উদ্দেশে তিনি ‘খেলা হবে’ স্লোগান দেন, মুখ্যমন্ত্রীর উদ্দেশে কটু মন্তব্যও করেন। পাশাপাশি সায়নির গাড়ি একজনকে চাপা দেয় বলেও অভিযোগ ওঠে। তাকে হাসপাতালে ভর্তি করাতে হয়। এরপর রাতেই সায়নিকে গ্রেফতার করার জন্য পুলিশ যায় পোলো হোটেলে। এখানেই রয়েছেন সায়নিসহ তৃণমূল নেতৃত্ব। কিন্তু রাতে পুলিশের কাছে আইনি নোটিস দাবি করেন তৃণমূল নেতারা। সায়নিকে থানায় নিয়ে যেতে বাধা দেন কুণাল ঘোষ।

এবিএস

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *