শুক্রবার ৩, ফেব্রুয়ারি ২০২৩
EN

স্বাধীনতার পাঁচ দশকেও বেকারত্ব-দারিদ্রতা এখনও জাতীয় সমস্যা

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী উত্তরের আমীর মুহাম্মদ সেলিম উদ্দিন বলেছেন, স্বাধীনতার ৫ দশক অতিক্রান্ত হলেও বেকারত্ব, দারিদ্র ও কর্মহীনতা এখনও আমাদের জাতীয় সমস্যা।

হাতির ঝিল১.jpg

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী উত্তরের আমীর মুহাম্মদ সেলিম উদ্দিন বলেছেন, স্বাধীনতার ৫ দশক অতিক্রান্ত হলেও বেকারত্ব, দারিদ্র ও কর্মহীনতা এখনও আমাদের জাতীয় সমস্যা।

তাই জাতিকে আত্মনির্ভরশীল ও সমৃদ্ধ করতে হলে বিশাল জনশক্তিকে যথাযথভাবে কাজে লাগানোর কোন বিকল্প নেই। আর সে মহতি উদ্দেশ্য নিয়ে জামায়াতে ইসলামী সুবিধাবঞ্চিত মানুষের আত্মকর্মসংস্থান সৃষ্টি করতে সাধ্যমত কাজ করে যাচ্ছে।

আজকের তৎপরতা তারই ধারাবাহিকতা মাত্র। তিনি সমাজের সুবিধাবঞ্চিত মানুষের আত্মকর্মসংস্থান সৃষ্টিতে সরকার, বেসরকারি ও দাতাসংস্থাসহ সমাজের বিত্তবান মানুষকে এগিয়ে আসার আহবান জানান।

তিনি আজ রাজধানীতে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী ঢাকা মহানগরী উত্তরের হাতিরঝিল থানা পূর্ব আয়োজিত স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তিতে আত্মকর্মসংস্থানের লক্ষ্যে বিভিন্ন উপকরণ প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

থানা আমীর এ্যাডভোকেট শেখ মোহাম্মদ জিল্লুর রহমান আজমীর সভাপতিত্বে ও থানা সেক্রেটারি খন্দকার রুহুল আমীনের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিতি ছিলেন থানা বায়তুল মাল সেক্রেটারি মাওলানা আবু সাদিক ও অফিস সেক্রেটারি আশিক ইকবাল প্রমূখ।

সেলিম উদ্দিন বলেন, জামায়াত কোন ক্ষমতাকেন্দ্রীক ও উচ্চাভিলাষী রাজনৈতিক সংগঠন নয় বরং প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই জামায়াতে ইসলামী মানবতার কল্যাণে ও গণমানুষের ভাগ্য উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

আমরা আত্মকর্মসংস্থান সৃষ্টি, বেকারত্ব দুরীকরণ, শিক্ষা উন্নয়ন, জনগণের মধ্যে নৈতিক মূল্যবোধ সৃষ্টি ও চর্চায় উদ্বুদ্ধকরণসহ মানুষের জাগতিক ও আধ্যাত্মিক উন্নয়নে ব্যাপকভাবে কাজ করে যাচ্ছি। একই সাথে আমরা সমৃদ্ধ জাতি গঠন ও ন্যায়-ইনসাফের সমাজ প্রতিষ্ঠায়ও বদ্ধপরিকর।

তাই দেশ ও জাতিকে সামনের দিকে এগিয়ে নিতে হলে সকলকে জামায়াতে ইসলামীর পতাকাতলে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। তিনি দেশকে কল্যাণ রাষ্ট্রে পরিণত করতে সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার আহবান জানান।

তিনি বলেন, একটি গণতান্ত্রিক, সুখী, সমৃদ্ধ, শোষণ ও বঞ্চনামুক্ত সমাজই স্বাধীনতার ইপ্সিত লক্ষ্য। কিন্তু রাজনৈতিক ব্যর্থতা ও অপরাজনীতির কারণে সে প্রত্যাশা আজও পূরণ হয়নি।

সাম্যের পরিবর্তে বিভক্তি, গণতন্ত্রের নামে স্বৈরতন্ত্র, আইনের শাসনের নামে জুলুম-নির্যাতন, সামাজিক ন্যায়বিচারের পরিবর্তে সীমাহীন বৈষম্যের ফলে দেশের মানুষ রাষ্ট্রের কাঙ্ক্ষিত সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। যা কোন স্বাধীন, সার্বভৌম ও গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রের বৈশিষ্ট্য হতে পারেনা।

তাই মহান বিজয়কে অর্থবহ করতে হলে দল-মত নির্বিশেষে সকলকে ঐক্যবদ্ধ প্রয়াস চালাতে হবে। ( পেস বিজ্ঞপ্তি)

এইচএন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *