রবিবার ২, অক্টোবর ২০২২
EN

সম্পদের হিসাব জমা দিলেন বদি

কক্সবাজার-৪ আসনের সরকার দলীয় সংসদ সদস্য আবদুর রহমান বদি সম্পদের হিসাব দাখিল করেছেন দুর্নীতি দমন কমশিনে (দুদক)। বৃহস্পতিবার দুদক র্কাযালয়ে এসে চুপচাপ সম্পদের বিবরণী জমা দিয়ে পেছনের গেট দিয়ে বেরিয়ে যান তিনি

কক্সবাজার-৪ আসনের সরকার দলীয় সংসদ সদস্য আবদুর রহমান বদি সম্পদের হিসাব দাখিল করেছেন দুর্নীতি দমন কমশিনে (দুদক)। বৃহস্পতিবার দুদক র্কাযালয়ে এসে সচিব মো. ফয়জুর রহমান চৌধুরীর কাছে চুপচাপ সম্পদের বিবরণী জমা দিয়ে পেছনের গেট দিয়ে বেরিয়ে যান তিনি। বিষয়টি সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেছেন দুদকের জনসংযোগ কর্মকর্তা ও উপপরিচালক প্রণব কুমার ভট্টাচার্য্য। গত ২৪  ফেব্রুয়ারি ৭ কার্যদিবসের মধ্যে তাকে সম্পদ বিবরণী জমা দেয়ার জন্য  নোটিশ পাঠায় দুদক। এর আগে গত ১৬ ফেব্রুয়ারী বিপুল সম্পদের মালিক হওয়ার কারণ জানতে দুদক তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে।   নির্বাচন কমিশনের কাছে জমা দেয়া হলফনামার তথ্য অনুসারে,গত ৫ বছরে এমপি থাকাকালে তার আয় বেড়েছে ৩৫১ গুণ। তার সম্পদ বেড়েছে ১৯ গুণেরও বেশি। অভিযোগ রয়েছে, হলফনামায় এমপি বদির আয়কর বিবরণীতে প্রদর্শিত অর্থ ও সম্পদের কথা উল্লেখ করেছেন। তিনি গত ৫ বছরে আয় করেছেন ৩৬ কোটি ৯৬ লাখ ৯৯ হাজার ৪০ টাকা। টেকনাফ স্থলবন্দরের  দায়িত্বে ছিলেন বদি। তিনি মায়ানমারের সঙ্গে আমদানি-রফতানি বাণিজ্য ও টেকনাফে জ্বালানি তেলের ব্যবসা করে এ টাকা অর্জন করেন বলে হলফনামায় উল্লেখ করেছেন। হলফনামা অনুসারে এমপি বদির বার্ষিক আয় ৭ কোটি ৩৯ লাখ ৩৯ হাজার ৮০৮ টাকা। আর বার্ষিক ব্যয় দুই কোটি ৮১ লাখ ২৯ হাজার ৯২৮ টাকা। এর আগে ২০০৮ সালে নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে জমা দেয়া হলফনামায় বলেছেন, তখন তার বার্ষিক আয় ছিল দুই লাখ ১০ হাজার ৪৮০ টাকা। আর ব্যয় ছিল ২ লাখ ১৮ হাজার ৭২৮ টাকা। তখন বিভিন্ন ব্যাংকে আবদুর রহমান বদির মোট জমা ও সঞ্চয়ি আমানত ছিল ৯১ হাজার ৯৮ টাকা। ৫ বছর পর তার আয় ৮ কোটি ৫ লাখ ১০ হাজার ২৩৭ টাকা। ২০০৮ সালে  নগদ টাকা ছিল ২ লাখ ৭ হাজার ৪৮ টাকা।  এখন ৫০ লাখ টাকা। এ ছাড়া এখন স্ত্রীর নগদ টাকা ১৫ লাখ ৯৯ হাজার ২৬৫ টাকা। আয়কর বিবরণীতে তার ৭ কোটি ৩৭ লাখ ৩৭ হাজার ৮০৮ টাকা। আর  সম্পদরে পরিমাণ ৯ কোটি ১৯ লাখ ৬৭ হাজার ৫৬৩ টাকা। ২০০৮ সালের আয়কর বিবরণীতে বার্ষিক আয়  ছিল ২ লাখ ১০ হাজার ৮৮০ টাকা। উল্লেখ্য, গত ১২ জানুয়ারি দুদকের নিয়মিত বৈঠকে বদিসহ ৭ জনের অবৈধ সম্পদ অর্জনের বিষয়টি অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। [b]ঢাকা, একে, ২০ মার্চ (টাইমনিউজবিডি.কম) // এআর[/b]

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *