রবিবার ৩, জুলাই ২০২২
EN

সাহারা গ্রুপের প্রধানের বিরুদ্ধে জামিন অযোগ্য গ্রেফতারি পরোয়ানা

ভারতের বিখ্যাত সাহারা গ্রুপের প্রধান সুব্রত রায়ের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছে দেশটির সুপ্রিম কোর্ট। বুধবার জামিন অযোগ্য এ পরোয়ানা জারি করা হয়। বিনিয়োগকারীদের অর্থ ফেরত সংক্রান্ত একটি মামলায় হাজির হতে অস্বীকৃতি জানানোয় সুব্রতের বিরুদ্ধে পরোয়ানা জারি করে সর্বোচ্চ আদালত। খবর এনডিটিভির।

ভারতের বিখ্যাত সাহারা গ্রুপের প্রধান সুব্রত রায়ের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছে দেশটির সুপ্রিম কোর্ট। বুধবার জামিন অযোগ্য এ পরোয়ানা জারি করা হয়। বিনিয়োগকারীদের অর্থ ফেরত সংক্রান্ত একটি মামলায় হাজির হতে অস্বীকৃতি জানানোয় সুব্রতের বিরুদ্ধে পরোয়ানা জারি করে সর্বোচ্চ আদালত। খবর এনডিটিভির। এর আগে গতকাল মঙ্গলবার ব্যক্তিগত হাজিরা থেকে অব্যাহতি চেয়ে আবেদন করেন সুব্রত। কিন্তু আদালত তার এই আবেদন বাতিল করে দেয়। আবেদন বাতিল করার একদিন পরই আজ বুধবার তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হলো। পুলিশকে ৪ মার্চের মধ্যে সুব্রত রায়ের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দিয়েছে আদালত। বুধবার আদালত জানায়, 'সর্বোচ্চ আদালতের হাত অনেক দূর বিস্তৃত। গতকালকে (মঙ্গলবার) আপনি যে আবেদন করেছিলেন আজকেও একই আবেদন করেছেন। গতকাল আদালত আপনার আবেদন বাতিল করে দেয়। অন্যান্য পরিচালকেরা যদি আদালতে আসতে পারেন তাহলে আপনি কেন পারবেন না।' তবে, সুব্রতের আইনজীবী রাম জেঠমালানি আদালতকে জানান, সুব্রত রায়ের মা অসুস্থ। তাই তার মায়ের সঙ্গে থাকার জন্যই এই আবেদন করা হয়। আদালতকে সুব্রত বলেন, "আমার মা অসুস্থ, এ ব্যাপারে যদি কোন সন্দেহ থাকে; তাহলে মহামান্য আদালত কাউকে আমার লখনৌয়ের বাড়িতে পাঠাতে পারেন। মায়ের চেয়ে বড় কিছু হতে পারে না।" তবে, আদালত সাহারা প্রধানের যুক্তি খন্ডন করে বলেন "গত দুই বছর ধরেই আমরা আপনার ব্যক্তিগত উপস্থিতি থেকে অব্যাহতির আবেদন গ্রহণ করে এসেছি।" এদিকে পুলিশ জানিয়েছে, তারা এখন সুব্রত রায়কে গ্রেফতার করতে পারে অথবা আদালতে উপস্থিত হওয়ার জন্য বলতে পারেন। সুব্রত নিজেই আদালতে হাজির হয়ে জামিন অযোগ্য গ্রেফতারি পরোয়ানা বাতিলের আবেদন জানাতে পারেন। অথবা তার আইনজীবীদের মাধ্যমে আবেদন জানাতে পারেন যে, তিনি আদালতে হাজির হবেন। সুব্রত রায়সহ সাহারা গ্রুপের অন্য তিন পরিচালকের বিরুদ্ধে বিনিয়োগকারীদের ১৯ হাজার কোটি রুপি ফেরত দেয়ার নির্দেশ দেয় আদালত। কয়েক মিলিয়ন ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারী সাহারা গ্রুপের দুটি প্রতিষ্ঠানে এই অর্থ বিনিয়োগ করেন। সিকিউরিটিজ এন্ড এক্সচেঞ্জ বোর্ড অব ইন্ডিয়া (সেবি) জানিয়েছে, গ্রাহকদের কাছ থেকে অবৈধভাবে অর্থ হাতিয়ে নিয়েছে সাহারা গ্রুপ। আদালত ২০১২ সালেই এসব অর্থ সুদসহ ফেরত দেয়ার নির্দেশ দেয় সাহারা গ্রুপকে। এদিকে সাহারা গ্রুপ জানিয়েছে, তারা ইতোমধ্যে ৫ হাজার কোটি রুপি সেবি'তে ফেরত দিয়েছে। বাকি অর্থও ফেরত দেয়া হবে। তবে, সাহারা গ্রুপের এ দাবি প্রত্যাখ্যান করেছে সেবি। সুপ্রিম কোর্ট সাহারা গ্রুপের কাছে এই অর্থের উৎস সম্পর্কে জানতে চেয়েছে। কোন উৎস থেকে অর্থ ফেরত দেয়া হবে তা জানতে চেয়েছে আদালত। সূত্র: এনডিটিভি [b]ঢাকা, ২৬ ফেব্রুয়ারি (টাইমনিউজবিডি.কম)//এমএ[/b]

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *