শুক্রবার ১, জুলাই ২০২২
EN

হাজী সেলিমপুত্র ও তার দেহরক্ষী ৩ দিনের রিমান্ডে

নৌবাহিনীর এক লেফটেন্যান্টকে মারধরের ঘটনায় গ্রেফতার ঢাকা-৭ আসনের আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য হাজী সেলিমপুত্র ইরফান সেলিম ও তার দেহরক্ষী জাহিদের ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

নৌবাহিনীর এক লেফটেন্যান্টকে মারধরের ঘটনায় গ্রেফতার ঢাকা-৭ আসনের আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য হাজী সেলিমপুত্র ইরফান সেলিম ও তার দেহরক্ষী জাহিদের ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

আজ (২৮ অক্টোবর) বুধবার ঢাকার এডিশনাল চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আসাদুজ্জামান নূর এই আদেশ দেন।

ইরফান ও জাহিদের ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে গতকাল (মঙ্গলবার) আদালতে আবেদন করে ধানমন্ডি থানা-পুলিশ।

এই রিমান্ড আবেদনের শুনানির জন্য আজ তাদের কারাগার থেকে আদালতে হাজির করা হয়। উভয় পক্ষের শুনানি নিয়ে দুজনের ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

একই মামলার আরেক আসামি এবি সিদ্দিক ওরফে দীপুকে গ্রেফতারের পর গতকাল আদালতে হাজির করে পুলিশ। আদালত তাঁর ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। তার আগের দিন ইরফানের গাড়ির চালক মিজানুর রহমানকে ১ দিনের রিমান্ডে নেওয়ার অনুমতি পায় পুলিশ।

এর আগে সোমবার অবৈধভাবে রাখা বিপুল সংখ্যক ওয়াকিটকি ও বিদেশি মদ পাওয়া যাওয়ায় ইরফান ও তার দেহরক্ষী জাহিদকে ১ বছরের কারাদণ্ড দেয় র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত।

এদিকে, ইরফানকে নৈতিক স্খলনজনিত অপরাধ এবং অসদাচরণের অভিযোগে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ৩০ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলরের পদ থেকে গতকাল (২৭ অক্টোবর) সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

গত ২৫ অক্টোবর (রোববার) রাতে ধানমন্ডিতে ল্যাবএইড হাসপাতালের সামনে ইরফান ও তার সহযোগীরা নৌবাহিনীর কর্মকর্তা লেফটেন্যান্ট ওয়াসিফ আহমেদ খানকে মারধর করেন। এই ঘটনায় হাজী সেলিমের ছেলেসহ চারজনের নাম উল্লেখ ছাড়াও অজ্ঞাত দু-তিনজনকে আসামি করে ধানমন্ডি থানায় মামলা করেন নৌবাহিনীর ওই কর্মকর্তা।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, রোববার রাত পৌনে ৮টার দিকে রাজধানীর নীলখেত থেকে কিছু বই কিনে স্ত্রীকে নিয়ে মোটরসাইকেলযোগে নিজেদের মোহাম্মদপুরের বাসায় ফিরছিলেন লেফটেন্যান্ট ওয়াসিফ। পথে ধানমন্ডির ল্যাবএইড হাসপাতারের কাছে একটি প্রাইভেটকার তাদের মোটরসাইকেলকে ধাক্কা দেয়। পরবর্তীতে প্রাইভেটকার থেকে কয়েকজন বেরিয়ে এসে ওয়াসিফকে মারধর ও তার স্ত্রীকে অকথ্য ভাষায় গালাগাল দিতে থাকেন।

এমবি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *