শুক্রবার ৩, ডিসেম্বর ২০২১
EN

হেরেও ভারতের সেমির পথ যেভাবে কঠিন করল আফগানিস্তান

টি-২০ বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে দ্বিতীয় ইনিংস শুরুর পরপরই স্পষ্ট হয়ে গিয়েছিল যে আফগানিস্তান ম্যাচে হারছে। ওই পরিস্থিতিতে নেট রানরেটের কথা মাথায় রেখে যতটা বেশি সম্ভব রান তোলার চেষ্টা করা হয়েছিল।

টি-২০ বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে দ্বিতীয় ইনিংস শুরুর পরপরই স্পষ্ট হয়ে গিয়েছিল যে আফগানিস্তান ম্যাচে হারছে। ওই পরিস্থিতিতে নেট রানরেটের কথা মাথায় রেখে যতটা বেশি সম্ভব রান তোলার চেষ্টা করা হয়েছিল। কারণ সেমিফাইনালে যাওয়ার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে নেট রানরেট। এমনটাই জানালেন রশিদ খান।

বুধবার ভারতের বিরুদ্ধে ৬৬ রানে হারের পর সংবাদ সম্মেলনে রশিদকে নেট রানরেট নিয়ে প্রশ্ন করা হয়। বিশেষত শুরুতেই উইকেট হারানোর পর আফগানিস্তান হারের ব্যবধান কমানোর চেষ্টা করেছিল কিনা, তা নিয়ে প্রশ্ন করেন এক সাংবাদিক। সেই প্রশ্নের জবাবে আফগানিস্তানের তারকা স্পিনার বলেন, ‘অবশ্যই। ওই বিষয়টা আমাদের মাথায় ছিল। শুরুতেই কয়েকটি উইকেট পরপর হারানোর পর দল হিসেবে আমরা যতটা বেশি সম্ভব, ততটা রান করার চেষ্টা করেছিলাম। নিট রানরেটের দিকে তাকিয়ে সেটা করা হয়েছে। সেটা নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে আমাদের শেষ ম্যাচে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে। সেটা অন্তিম পর্যায়ে বড় পার্থক্য গড়ে দিতে পারে। বার্তাটা স্পষ্ট ছিল, স্মার্ট ক্রিকেট খেল, ২০ ওভার খেল এবং যত বেশি রান করা যায়, তত কর। এটাই ছিল খেলোয়াড়দের মানসিকতা।’

আপাতত 'সুপার ১২'-এর 'গ্রুপ ২'-র যা অবস্থা, তাতে নেট রানরেট নিয়ে রশিদ ভুল কিছু বলেননি। সেই পরিস্থিতিতে বুধবার শেষের দিকে আফগানিস্তান যে রান তুলেছে, তা ভারতের গলায় কাঁটা হয়ে বিঁধতে পারে। ভারত যদি আফগানদের ১৩০ রানের মধ্যে আটকে রাখত, তাহলে বিরাটদের নিট রানরেট হতো +০.৫৩২। আর শেষ বলে যদি হার্দিক পান্ডিয়া ছক্কা না খেতেন, তাহলে ভারতের নেট রানরেট +০.১৮৮-তে ঠেকত। কিন্তু নির্ধারিত ২০ ওভারে আফগানিস্তান ১৪৪ রান তুলে ফেলায় ভারতের নেট রানরেট +০.০৭৩-তে আটকে গেছে।

এমনিতে 'গ্রুপ ২'-র সহজ অঙ্কে নিউজিল্যান্ড যদি নিজেদের বাকি দুটি ম্যাচ (নামিবিয়া ও আফগানিস্তান) জিতে যায়, তাহলে আট পয়েন্টে পৌঁছে যাবে। সেইসাথে 'গ্রুপ ২' থেকে দ্বিতীয় দল হিসেবে সেমিফাইনালে চলে যাবে। তাহলে ভারতের সামনে কোনো সুযোগ থাকবে না। কারণ ভারতের আর দুটি ম্যাচ বাকি আছে। দুটি ম্যাচ জিতলেও ছয় পয়েন্টের বেশি হবে না। সেই পরিস্থিতিতে ভারতকে আশা করতে হবে যে আফগানিস্তান বা নামিবিয়ার কাছে যেন হেরে যায় নিউজিল্যান্ড। সেক্ষেত্রে কিউয়িদেরও পয়েন্ট হবে ছয়। ভারতও ছয় পয়েন্টে (নামিবিয়া এবং স্কটল্যান্ডের বিরুদ্ধে জিতবে ধরে নিয়ে) থাকবে। আবার আফগানিস্তান যদি নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে জিতে যায়, তাহলে রশিদ খানদেরও পাঁচ ম্যাচে ছয় পয়েন্ট হবে। যে আফগানিস্তান-নিউজিল্যান্ড ম্যাচ হবে আগামী ৭ নভেম্বর। সেক্ষেত্রে নেট রানরেট অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হবে। আপাতত আফগানিস্তানের নেট রানরেট সবচেয়ে ভালো +১.৪৮১। সূত্র : হিন্দুস্তান টাইমস।

এবিএস

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *