বুধবার ৭, ডিসেম্বর ২০২২
EN

হলমার্কের বিরুদ্ধে ১০ মামলার চার্জশিট

হলমার্কেও ঘনিষ্ট ৩ প্রতিষ্ঠানের ঋণ জালিয়াতির ১০ মামলায় ২১ জনের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) ।

হলমার্কেও ঘনিষ্ট ৩ প্রতিষ্ঠানের ঋণ জালিয়াতির ১০ মামলায় ২১ জনের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) ।

এই ১০ মমলার চার্জশিটে সোনালি ব্যাংকের শেরাটন হোটেল শাখা থেকে ঋণ জালিয়াতির মাধ্যমে প্রায় ১৮ কোটি ৬৮ লাখ ৬১ হাজার ৪৭ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ রয়েছে।
আজ রোববার বিকেলে সহকারি পরিচালক মশিউর রহমানের নেতৃত্বে দুদকের একটি প্রতিনিধিদল ঢাকা মুখ্য মহনগর হাকিমের আদালতের সংশ্লিষ্ট শাখায় এই চার্জশিট দাখিল করেন।


চার্জশিটভুক্ত ২১ আসামির মধ্যে ৩ প্রতিষ্ঠানের ১০ আসামি হলো,-প্যারাগন নীট কম্পোজিটের এমডি সাইফুল হাসান রাজা, পরিচালক আব্দুল্লাহ আল মামুন ও তাদের সহযোগী মকুল হোসেন। ডিএন স্পোর্টস এর চেয়ারম্যান মোতাহার উদ্দিন, এমডি শফিকুর রহমান, কর্মকর্তা ফাহমিদা আক্তার শিখা। খান জাহান আলী সোয়েটারের চেয়ারম্যান তাজুল ইসলাম, শেখ আ.জলিল,পরিচালক রফিকুল ইসলাম এবং পরিচালক মীর মো. শওকত আলী।


এছাড়া সোনালী ব্যাংকের ১১ কর্মকর্তা হলেন- ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ের সাবেক ডিএমডি মাঈনুল হক (ওএসডি), আতিকুর রহমান (ওএসডি), জিএম আ.ন.ম মাশরুরুল হুদা সিরাজী, ডিজিএম শেখ আলতাফ হোসেন, মো. সফিজ উদ্দিন আহমেদ, কানিজ ফাতেমা চৌধুরী, এজিএম মো. কামরুল হোসেন খান (সাময়িক বরখাস্ত) ও খুরশীদ আলম, জিএম অফিসের জিএম ননী গোপাল নাথ (ওএসডি), মীর মহিদুর রহমান, সাবেক জিএম সবিতা সিরাজ ও এজিএম আশরাফ আলী পাটোয়ারী, রূপসী বাংলা শাখার (সাবেক হোটেল শেরাটন) সাবেক ব্যবস্থাপক (পরে ডিজিএম) একেএম আজিজুর রহমান (হলমার্কের মামলায় কারাগারে), এজিএম (সাময়িক বরখাস্ত) মো. সাইফুল হাসান ও নির্বাহী কর্মকর্তা (সাময়িক বরখাস্ত) মো.আবদুল মতিন।

জানা যায়, গত ৬ মে আদালতে চার্জশিট দাখিলের অনুমোদনের ৩৮ দিন পওে আদালতে চার্জশিট দাখিল করা হলো।
এই মামলাগুলো তদন্ত করেন, দুদকের উপ-পরিচালক মীর জয়নুল আবেদীনের নেতৃত্বে উপ-পরিচালক এসএমএম আখতার হামিদ ভুইয়া, সহকারি পরিচালক মশিউর রহমান, মোছাম্মৎ সেলিনা আখতার মনি, নাজমুচ্ছায়াদাত এবং উপ-সহকারি পরিচালক মুহাম্মদ জয়নাল আবেদীন এই১০ মামলার তদন্ত করেন ।


আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে তারা পরষ্পর যোগসাজশে ভুয়া এলসির বিপরীতে সোনালি ব্যাংকের শেরাটন হোটেল শাখা থেকে ১৮ কোটি ৬৮ লাখ ৬১ হাজার ৪৫৭ টাকা সরিয়ে নেয়। অভিযুক্ত প্রতিষ্ঠান ৩টি হলো; প্যারাগন নিট কম্পোজিট লিঃ আইবিপি , পিএসসি,এফবিপি এবং পিএডি খাতে ১৪ কোটি ৭২ লাখ ১১ হাজার ৯১৪ টাকা আত্মসাৎ করে। ডিএন স্পোর্টসর আইবিপি,পিএসসি এবং এফবিপি খাতে ২ কোটি ৮১ লাখ ৭৩ হাজার ৮৭৩ টাকা আত্মসাৎ করে। খান জাহান আলী সোয়েটার্স লি: পিএসপি খাতে ১ কোটি ১৪ লাখ ৭৫ লাখ ৬৭০ টাকা আত্মসাৎ করে।


২০১৩ সালের ১ জানুয়ারি ৫ প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ২৬টি মামলা করে দুদক। পরে আরো ১টিমামলাসহ মোট ২৭ মামলা দায়ের করে দুদক। ওই ২৭ মামলার মধ্যে আজ ১০ মামলার চার্জশিট দাখিল করা হয়েছেল।
ঢাকা, একে ,১৫ জুন (টাইমনিউজবিডি.কম)//এসএইচ// জেএ

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *